তিন উইকেট হারিয়ে দিন শেষে চাপে বাংলাদেশ

নিজস্ব প্রতিবেদক
  • Update Time : ০৮:০৮:৩৪ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ২২ মার্চ ২০২৪
  • / ৪৭ Time View

দুই ম্যাচ টেস্ট সিরিজের প্রথম ম্যাচের প্রথম ইনিংসের ২৮০ রানে অলআউট হয়েছে শ্রীলঙ্কা। জবাবে ব্যাট করতে নেমে কিছুটা ব্যাটিং বিপর্যয়ে পড়ে বাংলাদেশ।

শুক্রবার ( ২২ মার্চ) টস জিতে সফরকারীদের ব্যাটিংয়ে পাঠায় স্বাগতিকরা। প্রথম দিনে তিন উইকেট হারিয়ে ৩২ রান সংগ্রহ করেছে স্বাগতিকরা। মাহমুদুল হাসান জয় ৩৪ বলে ৯ রানে এবং তাইজুল শূন্য রানে অপরাজিত রয়েছেন।

এর আগে টস হেরে ব্যাট করতে নেমে শুরুতেই নিশান মাধুশঙ্কার উইকেট হারায় শ্রীলঙ্কা। এরপর ক্রিজে আসা কুশল মেন্ডিসকে সঙ্গে নিয়ে শুরুর ধাক্কা সামাল দেওয়ার চেষ্টা করেন দিমুথ করুণারত্নে।

৩৯ রানের জুটি গড়েন এই দুই ব্যাটার। এরপর ১৭ রানের মধ্যে ৪ উইকেট তুলে নিয়ে লঙ্কানদের চাপে ফেলে দেন খালেদ ও শরিফুল।

এরপর শূন্য রানে ক্যাচ তুলে দেন কামিন্দু মেন্ডিস। তবে তা তালুবন্দি করতে ব্যর্থ হন মাহমুদুল হাসান জয়। জীবন পেয়ে ধানাঞ্জায়াকে সঙ্গে নিয়ে প্রতিরোধ গড়েন কামিন্দু। ফিফটি তুলে নেন এই দুই ব্যাটার।

আক্রমণাত্নক ব্যাটিংয়ে সেঞ্চুরি তুলে নেন কামিন্দু। ধানাঞ্জায়াকে সঙ্গে নিয়ে ২০২ রানের জুটি গড়েন কামিন্দু। তবে দলীয় ২৫৯ রানে ১২৭ বলে ১০২ রান করে আউট হন কামিন্দু। তাকে আউট করেন অভিষিক্ত পেসার নাহিদ রানা।

কামিন্দুর বিদায়ের পর সেঞ্চুরি তুলে নেন ধানাঞ্জায়া। সেঞ্চুরির পরই তাকে সাজঘরে ফেরান রানা। দলীয় ২৬৪ রানে ১৩১ বলে ১০২ রান করে আউট হন লঙ্কান অধিনায়ক।

এরপর দ্রুতই আরও তিন উইকেট তুলে নিয়ে লঙ্কানদের অলআউট করে বাংলাদেশ। ৬৮ ওভারে ২৮০ রানে অলআউট হয় শ্রীলঙ্কা। বাংলাদেশের পক্ষে খালেদ ও রানা নেন ৩টি করে উইকেট।

Tag :

Please Share This Post in Your Social Media

তিন উইকেট হারিয়ে দিন শেষে চাপে বাংলাদেশ

Update Time : ০৮:০৮:৩৪ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ২২ মার্চ ২০২৪

দুই ম্যাচ টেস্ট সিরিজের প্রথম ম্যাচের প্রথম ইনিংসের ২৮০ রানে অলআউট হয়েছে শ্রীলঙ্কা। জবাবে ব্যাট করতে নেমে কিছুটা ব্যাটিং বিপর্যয়ে পড়ে বাংলাদেশ।

শুক্রবার ( ২২ মার্চ) টস জিতে সফরকারীদের ব্যাটিংয়ে পাঠায় স্বাগতিকরা। প্রথম দিনে তিন উইকেট হারিয়ে ৩২ রান সংগ্রহ করেছে স্বাগতিকরা। মাহমুদুল হাসান জয় ৩৪ বলে ৯ রানে এবং তাইজুল শূন্য রানে অপরাজিত রয়েছেন।

এর আগে টস হেরে ব্যাট করতে নেমে শুরুতেই নিশান মাধুশঙ্কার উইকেট হারায় শ্রীলঙ্কা। এরপর ক্রিজে আসা কুশল মেন্ডিসকে সঙ্গে নিয়ে শুরুর ধাক্কা সামাল দেওয়ার চেষ্টা করেন দিমুথ করুণারত্নে।

৩৯ রানের জুটি গড়েন এই দুই ব্যাটার। এরপর ১৭ রানের মধ্যে ৪ উইকেট তুলে নিয়ে লঙ্কানদের চাপে ফেলে দেন খালেদ ও শরিফুল।

এরপর শূন্য রানে ক্যাচ তুলে দেন কামিন্দু মেন্ডিস। তবে তা তালুবন্দি করতে ব্যর্থ হন মাহমুদুল হাসান জয়। জীবন পেয়ে ধানাঞ্জায়াকে সঙ্গে নিয়ে প্রতিরোধ গড়েন কামিন্দু। ফিফটি তুলে নেন এই দুই ব্যাটার।

আক্রমণাত্নক ব্যাটিংয়ে সেঞ্চুরি তুলে নেন কামিন্দু। ধানাঞ্জায়াকে সঙ্গে নিয়ে ২০২ রানের জুটি গড়েন কামিন্দু। তবে দলীয় ২৫৯ রানে ১২৭ বলে ১০২ রান করে আউট হন কামিন্দু। তাকে আউট করেন অভিষিক্ত পেসার নাহিদ রানা।

কামিন্দুর বিদায়ের পর সেঞ্চুরি তুলে নেন ধানাঞ্জায়া। সেঞ্চুরির পরই তাকে সাজঘরে ফেরান রানা। দলীয় ২৬৪ রানে ১৩১ বলে ১০২ রান করে আউট হন লঙ্কান অধিনায়ক।

এরপর দ্রুতই আরও তিন উইকেট তুলে নিয়ে লঙ্কানদের অলআউট করে বাংলাদেশ। ৬৮ ওভারে ২৮০ রানে অলআউট হয় শ্রীলঙ্কা। বাংলাদেশের পক্ষে খালেদ ও রানা নেন ৩টি করে উইকেট।