তাবলিগের ৮২ বাংলাদেশিকে জামিন দিলেন দিল্লির আদালত

নিজস্ব প্রতিবেদক
  • Update Time : ০২:২৭:০৩ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ১০ জুলাই ২০২০
  • / ১৩০ Time View

লকডাউনের সময় দিল্লির নিমাজউদ্দিন মারকাজ মসজিদে সমাবেশে যোগ দেওয়ায় আটক ৮২ বাংলাদেশি জামিন পেয়েছেন। শুক্রবার দিল্লির একটি আদালত তাঁদের জামিন দেন।

সংবাদমাধ্যম হিন্দুস্তান টাইমস জানিয়েছে, বাংলাদেশি এসব নাগরিকদের বিরুদ্ধে করোনা প্রাদুর্ভাবের সময় তাবলিগ জামাতে যোগ দিয়ে ভিসা শর্ত ভঙ্গ, অবৈধভাবে ধর্মপ্রচার কাজে যোগদান এবং সরকারের বিধি ভঙ্গ করার অভিযোগ আনা হয়েছে।

চিফ মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট গুরমোহিনা কাউর প্রত্যেককে ১০ হাজার টাকার বন্ডে নিজ মুচলেকায় জামিনে মুক্তি দেন। শুনানি চলাকালে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে আদালতে উপস্থিত করা হয়েছিল আটক বাংলাদেশিদের।

বাংলাদেশিদের পক্ষে নিযুক্ত আইনজীবী অ্যাডভোকেট আশিমা মন্ডল ও মন্দাকিনি সিং জানিয়েছেন, আদালতে আত্মপক্ষ সমর্থন করে জবাব দিয়েছেন আসামিরা। এতে তাঁরা দোষ স্বীকার করে লঘুদণ্ডের আবেদন করেছেন।

ভারতীয় দণ্ডবিধি অনুযায়ী, কোনো অপরাধ সমাজের আর্থ-সামাজিক অবস্থাকে প্রভাবিত না করলে এবং কোনো নারী বা ১৪ বছরের নিচে কোনো শিশুর বিরুদ্ধে অপরাধ না হলে দোষ স্বীকার করা হলে সর্বোচ্চ সাত বছরের কারাদণ্ডের বিধান রয়েছে।

দিল্লিতে তাবলিগ জামাতের সদর দপ্তর মারকাজ নিজামুদ্দিনে গত মার্চ মাসে সমাবেশে অংশ নিয়েছিলেন এসব বাংলাদেশিরা।

ওই সময় মারকাজে যোগ দেওয়ায় করোনা ছাড়ানো হচ্ছে ভারত জুড়ে- এমন আতঙ্ক তৈরি হয়। সমালোচনার মুখে পড়ে দিল্লির নিজামউদ্দিন মারকাজ।

Tag :

Please Share This Post in Your Social Media

তাবলিগের ৮২ বাংলাদেশিকে জামিন দিলেন দিল্লির আদালত

Update Time : ০২:২৭:০৩ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ১০ জুলাই ২০২০

লকডাউনের সময় দিল্লির নিমাজউদ্দিন মারকাজ মসজিদে সমাবেশে যোগ দেওয়ায় আটক ৮২ বাংলাদেশি জামিন পেয়েছেন। শুক্রবার দিল্লির একটি আদালত তাঁদের জামিন দেন।

সংবাদমাধ্যম হিন্দুস্তান টাইমস জানিয়েছে, বাংলাদেশি এসব নাগরিকদের বিরুদ্ধে করোনা প্রাদুর্ভাবের সময় তাবলিগ জামাতে যোগ দিয়ে ভিসা শর্ত ভঙ্গ, অবৈধভাবে ধর্মপ্রচার কাজে যোগদান এবং সরকারের বিধি ভঙ্গ করার অভিযোগ আনা হয়েছে।

চিফ মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট গুরমোহিনা কাউর প্রত্যেককে ১০ হাজার টাকার বন্ডে নিজ মুচলেকায় জামিনে মুক্তি দেন। শুনানি চলাকালে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে আদালতে উপস্থিত করা হয়েছিল আটক বাংলাদেশিদের।

বাংলাদেশিদের পক্ষে নিযুক্ত আইনজীবী অ্যাডভোকেট আশিমা মন্ডল ও মন্দাকিনি সিং জানিয়েছেন, আদালতে আত্মপক্ষ সমর্থন করে জবাব দিয়েছেন আসামিরা। এতে তাঁরা দোষ স্বীকার করে লঘুদণ্ডের আবেদন করেছেন।

ভারতীয় দণ্ডবিধি অনুযায়ী, কোনো অপরাধ সমাজের আর্থ-সামাজিক অবস্থাকে প্রভাবিত না করলে এবং কোনো নারী বা ১৪ বছরের নিচে কোনো শিশুর বিরুদ্ধে অপরাধ না হলে দোষ স্বীকার করা হলে সর্বোচ্চ সাত বছরের কারাদণ্ডের বিধান রয়েছে।

দিল্লিতে তাবলিগ জামাতের সদর দপ্তর মারকাজ নিজামুদ্দিনে গত মার্চ মাসে সমাবেশে অংশ নিয়েছিলেন এসব বাংলাদেশিরা।

ওই সময় মারকাজে যোগ দেওয়ায় করোনা ছাড়ানো হচ্ছে ভারত জুড়ে- এমন আতঙ্ক তৈরি হয়। সমালোচনার মুখে পড়ে দিল্লির নিজামউদ্দিন মারকাজ।