তথ্যমন্ত্রী হাছান মাহমুদের আজ শুভ জন্মদিন

নিজস্ব প্রতিবেদক
  • Update Time : ০৭:৪৬:৫৯ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ৫ জুন ২০২০
  • / ১৫৩ Time View

 

বিডিসমাচার ডেস্কঃ

তথ্যমন্ত্রী ও আওয়ামী লী‌গের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ড. হাছান মাহমুদের আজ শুভ জন্মদিন। ১৯৬৩ সালের ৫ জুনে চট্টগ্রামের রাঙ্গুনিয়া উপজেলায় জন্মগ্রহণ করেন তিনি।

তথ্যমন্ত্রীর জন্মদিনে বিডিসমাচার পরিবারের পক্ষ থেকে শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন রইলো।
.
তথ্যমন্ত্রীর জন্মদিনে বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ সহ সকল সহযোগি সংগঠন এবং অন্যান্য রাজনৈতিক, সামাজিক সংগঠন, সাংবাদিক সংগঠনের নেতৃবৃন্দ জন্মদিনের শুভেচ্ছা জানান।

হাছান মাহমুদ ১৯৭৭ সালে চট্টগ্রাম ওয়ার্ড শাখা ছাত্রলীগে যোগদানের মাধ্যমে ছাত্ররাজনীতি শুরু করেন। ১৯৭৮ থেকে ১৯৭৯ পর্যন্ত তৎকালীন সরকারি ইন্টারমিডিয়েট কলেজ (বর্তমান সরকারি হাজী মুহাম্মদ মহসিন কলেজ) শাখা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক ছিলেন। ১৯৮৮ সালে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি হিসেবে দায়িত্ব গ্রহণ করেন। ১৯৯২ সালে তিনি আওয়ামী লীগে যোগদান করেন। ১৯৯৩ সাল থেকে তিনি বেলজিয়ামে অবস্থানকালে সেখানকার আওয়ামী লীগের বিভিন্ন পদে দায়িত্ব পালন করেন। এর মধ্যে ১৯৯৫ থেকে ২০০০ সালের মার্চ পর্যন্ত বেলজিয়াম শাখা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ছিলেন। সপ্তম জাতীয় সংসদের সময়কালে ১৯৯৬ থেকে ২০০১ পর্যন্ত তিনি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার রাজনৈতিক ও সংসদ বিষয়ক উপদেষ্টার দায়িত্ব পালন করেন।

হাছান মাহমুদ ২০০১ সালে আওয়ামী লীগের সভাপতি শেখ হাসিনার বিশষ সহকারী এবং ২০০২ থেকে ২০১২ সাল পর্যন্ত দলটির পরিবেশ ও বন বিষয়ক সম্পাদক ছিলেন। ২০১৯ সাল পর্যন্ত তিনি দলের প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক ছিলেন। ২০০৮ সালে নবম জাতীয় সংসদ নির্বাচনে প্রথমবারেরমত আওয়ামী লীগের মনোনয়নে চট্টগ্রাম-৬ আসন থেকে সালাউদ্দিন কাদের চৌধুরীকে পরাজিত করে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন। এ সময় শেখ হাসিনার তৃতীয় মন্ত্রিসভায় তিনি ২০০৯ সালের ৮ জানুয়ারি থেকে ৩১ জুলাই পর্যন্ত প্রথমে পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী, একই বছরের ১ আগস্ট থেকে ২০১১ সালের ২৮ নভেম্বর পর্যন্ত বন ও পরিবেশ মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী এবং পরবর্তীতে একই মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রীর দায়িত্ব পালন করেন।

২০১৪ সালে দশম জাতীয় সংসদ নির্বাচনে এবং ২০১৮ সালে একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে তিনি চট্টগ্রাম-৭ আসন থেকে নির্বাচিত হন। দশম জাতীয় সংসদে তিনি পরিবেশ ও বন মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির চেয়ারম্যান হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। একাদশ জাতীয় সংসদে শেখ হাসিনার চতুর্থ মন্ত্রিসভায় তিনি তথ্যমন্ত্রীর দায়িত্ব পান।

চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় থেকে রসায়নে স্নাতক, ব্রিজ ইউনিভার্সিটি অব ব্রাসেলস- বেলজিয়াম থেকে পরিবেশ বিজ্ঞানে, ইউনিভার্সিটি অব লিবহা দু ব্রাসেলস বেলজিয়াম থেকে আন্তর্জাতিক রাজনীতিতে এবং চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় থেকে রসায়নে মাস্টার্স ডিগ্রী অর্জন করেন।

এছাড়াও ব্রিজ ইউনিভার্সিটি অফ ব্রাসেলস থেকে ১৯৯৩ সালে পরিবেশ বিজ্ঞানে পোস্ট গ্র্যাজুয়েট ডিপ্লোমা সম্পন্ন করেন।

হাছান মাহমু‌দ ২০০১ সালে লিম্বুর্গ ইউনিভার্সিটি সেন্ট্রাম, বেলজিয়াম থেকে এনভায়রনেমন্টাল সায়েন্স-এর উপর পি, এইচ, ডি ডিগ্রী অর্জন করেন।

২০১৫ সালের ৫ই অক্টোবর,“গ্রিন ক্রস ইন্টারন্যাশনাল” তাদের সাধারণ অধিবেশনে জাতীয় এবং আন্তর্জাতিক পর্যায়ে, জলবায়ু পরিবর্তনের বিরুদ্ধে তার শক্ত ও জোরালো ভূমিকার জন্য তাকে “সার্টিফিকেট অব অনারেবল মেনশনে” ভূষিত করে। (এটি গ্রিন স্টার পুরস্কারেরই একটি অংশ)।

ড. হাছান মাহমুদ দেশে এবং আন্তর্জাতিক পরিমন্ডলে একজন খ্যাতিমান পরিবেশবিদ হিসেবে সুপরিচিত।

Tag :

Please Share This Post in Your Social Media

তথ্যমন্ত্রী হাছান মাহমুদের আজ শুভ জন্মদিন

Update Time : ০৭:৪৬:৫৯ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ৫ জুন ২০২০

 

বিডিসমাচার ডেস্কঃ

তথ্যমন্ত্রী ও আওয়ামী লী‌গের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ড. হাছান মাহমুদের আজ শুভ জন্মদিন। ১৯৬৩ সালের ৫ জুনে চট্টগ্রামের রাঙ্গুনিয়া উপজেলায় জন্মগ্রহণ করেন তিনি।

তথ্যমন্ত্রীর জন্মদিনে বিডিসমাচার পরিবারের পক্ষ থেকে শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন রইলো।
.
তথ্যমন্ত্রীর জন্মদিনে বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ সহ সকল সহযোগি সংগঠন এবং অন্যান্য রাজনৈতিক, সামাজিক সংগঠন, সাংবাদিক সংগঠনের নেতৃবৃন্দ জন্মদিনের শুভেচ্ছা জানান।

হাছান মাহমুদ ১৯৭৭ সালে চট্টগ্রাম ওয়ার্ড শাখা ছাত্রলীগে যোগদানের মাধ্যমে ছাত্ররাজনীতি শুরু করেন। ১৯৭৮ থেকে ১৯৭৯ পর্যন্ত তৎকালীন সরকারি ইন্টারমিডিয়েট কলেজ (বর্তমান সরকারি হাজী মুহাম্মদ মহসিন কলেজ) শাখা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক ছিলেন। ১৯৮৮ সালে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি হিসেবে দায়িত্ব গ্রহণ করেন। ১৯৯২ সালে তিনি আওয়ামী লীগে যোগদান করেন। ১৯৯৩ সাল থেকে তিনি বেলজিয়ামে অবস্থানকালে সেখানকার আওয়ামী লীগের বিভিন্ন পদে দায়িত্ব পালন করেন। এর মধ্যে ১৯৯৫ থেকে ২০০০ সালের মার্চ পর্যন্ত বেলজিয়াম শাখা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ছিলেন। সপ্তম জাতীয় সংসদের সময়কালে ১৯৯৬ থেকে ২০০১ পর্যন্ত তিনি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার রাজনৈতিক ও সংসদ বিষয়ক উপদেষ্টার দায়িত্ব পালন করেন।

হাছান মাহমুদ ২০০১ সালে আওয়ামী লীগের সভাপতি শেখ হাসিনার বিশষ সহকারী এবং ২০০২ থেকে ২০১২ সাল পর্যন্ত দলটির পরিবেশ ও বন বিষয়ক সম্পাদক ছিলেন। ২০১৯ সাল পর্যন্ত তিনি দলের প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক ছিলেন। ২০০৮ সালে নবম জাতীয় সংসদ নির্বাচনে প্রথমবারেরমত আওয়ামী লীগের মনোনয়নে চট্টগ্রাম-৬ আসন থেকে সালাউদ্দিন কাদের চৌধুরীকে পরাজিত করে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন। এ সময় শেখ হাসিনার তৃতীয় মন্ত্রিসভায় তিনি ২০০৯ সালের ৮ জানুয়ারি থেকে ৩১ জুলাই পর্যন্ত প্রথমে পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী, একই বছরের ১ আগস্ট থেকে ২০১১ সালের ২৮ নভেম্বর পর্যন্ত বন ও পরিবেশ মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী এবং পরবর্তীতে একই মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রীর দায়িত্ব পালন করেন।

২০১৪ সালে দশম জাতীয় সংসদ নির্বাচনে এবং ২০১৮ সালে একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে তিনি চট্টগ্রাম-৭ আসন থেকে নির্বাচিত হন। দশম জাতীয় সংসদে তিনি পরিবেশ ও বন মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির চেয়ারম্যান হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। একাদশ জাতীয় সংসদে শেখ হাসিনার চতুর্থ মন্ত্রিসভায় তিনি তথ্যমন্ত্রীর দায়িত্ব পান।

চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় থেকে রসায়নে স্নাতক, ব্রিজ ইউনিভার্সিটি অব ব্রাসেলস- বেলজিয়াম থেকে পরিবেশ বিজ্ঞানে, ইউনিভার্সিটি অব লিবহা দু ব্রাসেলস বেলজিয়াম থেকে আন্তর্জাতিক রাজনীতিতে এবং চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় থেকে রসায়নে মাস্টার্স ডিগ্রী অর্জন করেন।

এছাড়াও ব্রিজ ইউনিভার্সিটি অফ ব্রাসেলস থেকে ১৯৯৩ সালে পরিবেশ বিজ্ঞানে পোস্ট গ্র্যাজুয়েট ডিপ্লোমা সম্পন্ন করেন।

হাছান মাহমু‌দ ২০০১ সালে লিম্বুর্গ ইউনিভার্সিটি সেন্ট্রাম, বেলজিয়াম থেকে এনভায়রনেমন্টাল সায়েন্স-এর উপর পি, এইচ, ডি ডিগ্রী অর্জন করেন।

২০১৫ সালের ৫ই অক্টোবর,“গ্রিন ক্রস ইন্টারন্যাশনাল” তাদের সাধারণ অধিবেশনে জাতীয় এবং আন্তর্জাতিক পর্যায়ে, জলবায়ু পরিবর্তনের বিরুদ্ধে তার শক্ত ও জোরালো ভূমিকার জন্য তাকে “সার্টিফিকেট অব অনারেবল মেনশনে” ভূষিত করে। (এটি গ্রিন স্টার পুরস্কারেরই একটি অংশ)।

ড. হাছান মাহমুদ দেশে এবং আন্তর্জাতিক পরিমন্ডলে একজন খ্যাতিমান পরিবেশবিদ হিসেবে সুপরিচিত।