ঢাবিতে পেনশনের ‘বৈষম্যমূলক প্রজ্ঞাপন’ বাতিলের দাবিতে কর্মকর্তা-কর্মচারীদের কর্মবিরতি ও প্রতিবাদ সমাবেশ

নিজস্ব প্রতিবেদক
  • Update Time : ১১:০১:১৫ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ৪ জুন ২০২৪
  • / 55

জাননাহ, ঢাবি প্রতিনিধি

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে (ঢাবি) গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের অর্থ মন্ত্রাণালয় কর্তৃক জারিকৃত পেনশন সংক্রান্ত ‘বৈষম্যমূলক প্রজ্ঞাপন’ বাতিলের দাবিতে ২ ঘন্টার কর্মবিরতি ও প্রতিবাদ সমাবেশ পালিত হয়েছে।

মঙ্গলবার (৪ জুন) সকাল ১১টা থেকে দুপুর ১টা পর্যন্ত ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কর্মকর্তা-কর্মচারী ঐক্য পরিষদ- এর ব্যানারে এ কর্মসূচি পালন করা হয়।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সকল অফিসে একযোগে এই কর্মবিরতি পালন করা হয়। পরে কর্মকর্তা-কর্মচারীরা প্রশাসনিক ভবনের সামনে জমায়েত হয়ে তাৎক্ষনিক একটি বিক্ষোভ মিছিল বের করেন যেটি বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ করে আবারও প্রশাসনিক ভবনের সামনে ফিরে আসে। এরপর মল চত্ত্বরে সমবেত হয়ে প্রতিবাদ সমাবেশ করেন তারা।

প্রতিবাদ সমাবেশে সভাপতিত্ব করেন ঢাবি কর্মকর্তা-কর্মচারী ঐক্য পরিষদের আহ্বায়ক ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় অফিসার্স এসোসিয়েশনের সভাপতি  মো. আব্দুল মোতালেব এবং সঞ্চালনা করেন ঢাবি কর্মকর্তা-কর্মচারী ঐক্য পরিষদের সদস্য-সচিব ও ঢাবি ৪র্থ শ্রেণী কর্মচারী ইউনিয়নের সভাপতি  মো: শাহজাহান। 

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কর্মকর্তা-কর্মচারী ঐক্য পরিষদ অনতিবিলম্বে এই প্রজ্ঞাপন বাতিল করে বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক, কর্মকর্তা-কর্মচারী সমাজের মধ্যে সৃষ্ট হতাশা ও অসন্তোষ লাঘব করার জন্য মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কাছে আহ্বান জানান। 

এসময় ঈদুল আযহার পূর্বে সরকার এই দাবি মেনে প্রজ্ঞাপন প্রত্যাহার না করলে লাগাতার কর্মবিরতিসহ আরও কঠোর কর্মসূচি দেয়া হবে বলেও হুঁশিয়ারী জানান তারা।

ঢাবি কর্মকর্তা-কর্মচারী ঐক্য পরিষদের আহ্বায়ক ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় অফিসার্স এসোসিয়েশনের সভাপতি  মো. আব্দুল মোতালেব বলেন, ভাষা আন্দোলন থেকে শুরু করে প্রত্যেকটা আন্দোলনে যে ভূমিকা ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র-শিক্ষক, কর্মকর্তা-কর্মচারীরা রেখেছেন, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় একটা স্বাধীন দেশ দিয়েছে , একটা স্বাধীন পতাকা উত্তোলিত হয়েছে যে বিশ্ববিদ্যালয়ে সেই বিশ্ববিদ্যালয়কে কোনো কালো আইন দ্বারা দাবিয়ে রাখা যাবে না।

এসময় বিশ্ববিদ্যালয়ের স্বার্থে ও উচ্চশিক্ষার প্রসারে এ আন্দোলনের প্রতি ছাত্রদেরও সমর্থন চান তিনি।

উক্ত প্রতিবাদ সভায় উপস্থিত ছিলেন ৪র্থ শ্রেণী কর্মচারী ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক মোঃ সেলিম মিয়া; কারিগরী কর্মচারী সমিতির সভাপতি মো: নিজাম উদ্দিন, সাধারণ সম্পাদক মো: শামসুল আলম বাদল; কর্মচারী সমিতির সাধারণ সম্পাদক মোঃ রুহুল আমিন, সভাপতি মোঃ ছারোয়ার মোর্শেদ ও অফিসার্স এসোসিয়েশনের সাধারণ সম্পাদক মোঃ ছরোয়ার হোসেন প্রমুখ।

Tag :

Please Share This Post in Your Social Media

ঢাবিতে পেনশনের ‘বৈষম্যমূলক প্রজ্ঞাপন’ বাতিলের দাবিতে কর্মকর্তা-কর্মচারীদের কর্মবিরতি ও প্রতিবাদ সমাবেশ

Update Time : ১১:০১:১৫ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ৪ জুন ২০২৪

জাননাহ, ঢাবি প্রতিনিধি

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে (ঢাবি) গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের অর্থ মন্ত্রাণালয় কর্তৃক জারিকৃত পেনশন সংক্রান্ত ‘বৈষম্যমূলক প্রজ্ঞাপন’ বাতিলের দাবিতে ২ ঘন্টার কর্মবিরতি ও প্রতিবাদ সমাবেশ পালিত হয়েছে।

মঙ্গলবার (৪ জুন) সকাল ১১টা থেকে দুপুর ১টা পর্যন্ত ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কর্মকর্তা-কর্মচারী ঐক্য পরিষদ- এর ব্যানারে এ কর্মসূচি পালন করা হয়।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সকল অফিসে একযোগে এই কর্মবিরতি পালন করা হয়। পরে কর্মকর্তা-কর্মচারীরা প্রশাসনিক ভবনের সামনে জমায়েত হয়ে তাৎক্ষনিক একটি বিক্ষোভ মিছিল বের করেন যেটি বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ করে আবারও প্রশাসনিক ভবনের সামনে ফিরে আসে। এরপর মল চত্ত্বরে সমবেত হয়ে প্রতিবাদ সমাবেশ করেন তারা।

প্রতিবাদ সমাবেশে সভাপতিত্ব করেন ঢাবি কর্মকর্তা-কর্মচারী ঐক্য পরিষদের আহ্বায়ক ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় অফিসার্স এসোসিয়েশনের সভাপতি  মো. আব্দুল মোতালেব এবং সঞ্চালনা করেন ঢাবি কর্মকর্তা-কর্মচারী ঐক্য পরিষদের সদস্য-সচিব ও ঢাবি ৪র্থ শ্রেণী কর্মচারী ইউনিয়নের সভাপতি  মো: শাহজাহান। 

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কর্মকর্তা-কর্মচারী ঐক্য পরিষদ অনতিবিলম্বে এই প্রজ্ঞাপন বাতিল করে বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক, কর্মকর্তা-কর্মচারী সমাজের মধ্যে সৃষ্ট হতাশা ও অসন্তোষ লাঘব করার জন্য মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কাছে আহ্বান জানান। 

এসময় ঈদুল আযহার পূর্বে সরকার এই দাবি মেনে প্রজ্ঞাপন প্রত্যাহার না করলে লাগাতার কর্মবিরতিসহ আরও কঠোর কর্মসূচি দেয়া হবে বলেও হুঁশিয়ারী জানান তারা।

ঢাবি কর্মকর্তা-কর্মচারী ঐক্য পরিষদের আহ্বায়ক ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় অফিসার্স এসোসিয়েশনের সভাপতি  মো. আব্দুল মোতালেব বলেন, ভাষা আন্দোলন থেকে শুরু করে প্রত্যেকটা আন্দোলনে যে ভূমিকা ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র-শিক্ষক, কর্মকর্তা-কর্মচারীরা রেখেছেন, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় একটা স্বাধীন দেশ দিয়েছে , একটা স্বাধীন পতাকা উত্তোলিত হয়েছে যে বিশ্ববিদ্যালয়ে সেই বিশ্ববিদ্যালয়কে কোনো কালো আইন দ্বারা দাবিয়ে রাখা যাবে না।

এসময় বিশ্ববিদ্যালয়ের স্বার্থে ও উচ্চশিক্ষার প্রসারে এ আন্দোলনের প্রতি ছাত্রদেরও সমর্থন চান তিনি।

উক্ত প্রতিবাদ সভায় উপস্থিত ছিলেন ৪র্থ শ্রেণী কর্মচারী ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক মোঃ সেলিম মিয়া; কারিগরী কর্মচারী সমিতির সভাপতি মো: নিজাম উদ্দিন, সাধারণ সম্পাদক মো: শামসুল আলম বাদল; কর্মচারী সমিতির সাধারণ সম্পাদক মোঃ রুহুল আমিন, সভাপতি মোঃ ছারোয়ার মোর্শেদ ও অফিসার্স এসোসিয়েশনের সাধারণ সম্পাদক মোঃ ছরোয়ার হোসেন প্রমুখ।