ঢাকার বাতাস আজ ‘খুবই অস্বাস্থ্যকর’, দূষণের তালিকায় শীর্ষে

নিজস্ব প্রতিবেদক
  • Update Time : ০৯:৪৭:৫৯ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ১২ ফেব্রুয়ারী ২০২৪
  • / ২৫ Time View

বায়ুদূষণের তালিকায় ঢাকার অবস্থান শীর্ষে। সোমবার (১২ ফেব্রুয়ারি) সকাল ৮টা ৩০ মিনিটে বায়ুর মান পর্যবেক্ষণকারী সংস্থা এয়ার কোয়ালিটি ইনডেক্সের (আইকিউএয়ার) সূচক থেকে জানা গেছে এসব তথ্য।
তালিকার শীর্ষে অবস্থান করা ঢাকার বায়ুর মানের স্কোর হচ্ছে ২৮৬। এর অর্থ দাঁড়ায় এখানকার বায়ু ‘খুবই অস্বাস্থ্যকর’ পর্যায়ে রয়েছে। দ্বিতীয় অবস্থানে রয়েছে ভারতের কলকাতা। এই শহরের স্কোর ২৬৯ এর অর্থ সেখানকার বাতাসও খুবই অস্বাস্থ্যকর। তৃতীয় অবস্থানে রয়েছে ভারতের আরেক শহর মুম্বাই। এই শহরটির স্কোর ২৪০ অর্থাৎ খুবই অস্বাস্থ্যকর মুম্বাইয়ের বাতাসের মানও। চতুর্থ নম্বরে রয়েছে পাকিস্তানের লাহোর। এই শহরটির বায়ুর মানও খুবই অস্বাস্থ্যকর পর্যায়ে রয়েছে।

এরপর রয়েছে ভারতের আরেক শহর দিল্লি এবং এই শহরের বাতাসও রয়েছে খুবই অস্বাস্থ্যকর পরিস্থিতিতে।

১০১ থেকে ১৫০ এর মধ্যে হলে বাতাসের মান ‘সংবেদনশীল গোষ্ঠীর জন্য অস্বাস্থ্যকর’, ১৫০ থেকে ২০০ এর মধ্যে একিউআই স্কোরকে ‘অস্বাস্থ্যকর’ বলে মনে করা হয়। ২০১ থেকে ৩০০ এর মধ্যে একিউআই স্কোরকে ‘খুব অস্বাস্থ্যকর’ বলা হয়, ৩০১ বা তার বেশি একিউআই স্কোরকে ‘ঝুঁকিপূর্ণ’ হিসেবে বিবেচনা করা হয়, যা বাসিন্দাদের জন্য গুরুতর স্বাস্থ্যঝুঁকি তৈরি করে।

বাংলাদেশে একিউআই নির্ধারণ করা হয় দূষণের পাঁচটি বৈশিষ্ট্যের ওপর ভিত্তি করে। সেগুলো হলো—বস্তুকণা (পিএম১০ ও পিএম২.৫), এনও২, সিও, এসও২ ও ওজোন (ও৩)।

ঢাকায় বায়ু দূষণের জন্য ইটভাটা, যানবাহনের ধোঁয়া ও নির্মাণ সাইটের ধুলোকে দায়ী করছেন বিশেষজ্ঞরা। বায়ুদূষণের ফলে বাড়ছে শ্বাসকষ্ট, কাশি, নিম্ন শ্বাসনালীর সংক্রমণ এবং বিষণ্ণতার ঝুঁকি।

Tag :

Please Share This Post in Your Social Media

ঢাকার বাতাস আজ ‘খুবই অস্বাস্থ্যকর’, দূষণের তালিকায় শীর্ষে

Update Time : ০৯:৪৭:৫৯ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ১২ ফেব্রুয়ারী ২০২৪

বায়ুদূষণের তালিকায় ঢাকার অবস্থান শীর্ষে। সোমবার (১২ ফেব্রুয়ারি) সকাল ৮টা ৩০ মিনিটে বায়ুর মান পর্যবেক্ষণকারী সংস্থা এয়ার কোয়ালিটি ইনডেক্সের (আইকিউএয়ার) সূচক থেকে জানা গেছে এসব তথ্য।
তালিকার শীর্ষে অবস্থান করা ঢাকার বায়ুর মানের স্কোর হচ্ছে ২৮৬। এর অর্থ দাঁড়ায় এখানকার বায়ু ‘খুবই অস্বাস্থ্যকর’ পর্যায়ে রয়েছে। দ্বিতীয় অবস্থানে রয়েছে ভারতের কলকাতা। এই শহরের স্কোর ২৬৯ এর অর্থ সেখানকার বাতাসও খুবই অস্বাস্থ্যকর। তৃতীয় অবস্থানে রয়েছে ভারতের আরেক শহর মুম্বাই। এই শহরটির স্কোর ২৪০ অর্থাৎ খুবই অস্বাস্থ্যকর মুম্বাইয়ের বাতাসের মানও। চতুর্থ নম্বরে রয়েছে পাকিস্তানের লাহোর। এই শহরটির বায়ুর মানও খুবই অস্বাস্থ্যকর পর্যায়ে রয়েছে।

এরপর রয়েছে ভারতের আরেক শহর দিল্লি এবং এই শহরের বাতাসও রয়েছে খুবই অস্বাস্থ্যকর পরিস্থিতিতে।

১০১ থেকে ১৫০ এর মধ্যে হলে বাতাসের মান ‘সংবেদনশীল গোষ্ঠীর জন্য অস্বাস্থ্যকর’, ১৫০ থেকে ২০০ এর মধ্যে একিউআই স্কোরকে ‘অস্বাস্থ্যকর’ বলে মনে করা হয়। ২০১ থেকে ৩০০ এর মধ্যে একিউআই স্কোরকে ‘খুব অস্বাস্থ্যকর’ বলা হয়, ৩০১ বা তার বেশি একিউআই স্কোরকে ‘ঝুঁকিপূর্ণ’ হিসেবে বিবেচনা করা হয়, যা বাসিন্দাদের জন্য গুরুতর স্বাস্থ্যঝুঁকি তৈরি করে।

বাংলাদেশে একিউআই নির্ধারণ করা হয় দূষণের পাঁচটি বৈশিষ্ট্যের ওপর ভিত্তি করে। সেগুলো হলো—বস্তুকণা (পিএম১০ ও পিএম২.৫), এনও২, সিও, এসও২ ও ওজোন (ও৩)।

ঢাকায় বায়ু দূষণের জন্য ইটভাটা, যানবাহনের ধোঁয়া ও নির্মাণ সাইটের ধুলোকে দায়ী করছেন বিশেষজ্ঞরা। বায়ুদূষণের ফলে বাড়ছে শ্বাসকষ্ট, কাশি, নিম্ন শ্বাসনালীর সংক্রমণ এবং বিষণ্ণতার ঝুঁকি।