ড. ইউনূসের ওপর প্রতিহিংসা-হয়রানি বন্ধ না হলে আমেরিকার সঙ্গে সম্পর্ক নষ্ট হতে পারে

নিজস্ব প্রতিবেদক
  • Update Time : ০৫:৫৬:১৪ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১৪ মার্চ ২০২৪
  • / ৩৯ Time View

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

যুক্তরাষ্ট্রের উচ্চকক্ষ সিনেটের দ্বিতীয় সর্বোচ্চ নেতা (মেজরিটি হুইপ) ডিক ডারবিন বলেছেন, অর্থনীতিবিদ ড. মুহাম্মদ ইউনূসের ওপর প্রতিহিংসার রাজনীতি বন্ধে সরকার ব্যর্থ হলে বাংলাদেশের সঙ্গে যুক্তরাষ্ট্রের দ্বিপক্ষীয় অংশীদারত্বে নেতিবাচক প্রভাব পড়তে পারে। সামাজিক মাধ্যম এক্সে দেওয়া বার্তায় ডারবান ড. মুহাম্মদ ইউনূসের বিরুদ্ধে বিচারের নামে হয়রানি বন্ধের আহ্বান জানিয়েছেন।

বৃহস্পতিবার (১৪ মার্চ) যুক্তরাষ্ট্রের স্থানীয় সময় ভোর ৩টা ২৯ মিনিটে সামাজিক মাধ্যমে এক্সে (সাবেক টুইটার) দেওয়া বার্তায় ইলিনয় অঙ্গরাজ্যের সিনেটর এই ডেমোক্রেট নেতা এমন মন্তব্য করেন।

ওয়াশিংটনে বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত মুহাম্মদ ইমরানের সঙ্গে বৈঠকের পর সিনেটর ডারবিন বলেন, বাংলাদেশের সঙ্গে দ্বিপক্ষীয় সুদীর্ঘ সম্পর্ককে যুক্তরাষ্ট্র গুরুত্ব দেয়। মিয়ানমার থেকে পালিয়ে বাংলাদেশে আসা রোহিঙ্গা শরণার্থীদের যেভাবে সহায়তা করেছে, আশ্রয় দিয়েছে আমি এর প্রশংসা করি। কিন্তু, মুহাম্মদ ইউনূসের সঙ্গে অনেকটা (সরকার) ব্যক্তিপর্যায়ের প্রতিহিংসা বন্ধে ব্যর্থ হলে বাংলাদেশের সঙ্গে যুক্তরাষ্ট্রের অংশীদারত্বে নেতিবাচক প্রভাব পড়বে।

২০১৩ সালে মার্কিন কংগ্রেসে অধ্যাপক ইউনূসকে কংগ্রেশনাল গোল্ড মেডাল পুরস্কার দেওয়ার বিষয়ে ডিক ডারবিন প্রধান ভূমিকা রেখেছিলেন। বৈশ্বিক দারিদ্র দূর করতে ড. ইউনূসের অগ্রবর্তী ভূমিকার স্বীকৃতি হিসেবে দেওয়া হয় এই পুরস্কার।

Tag :

Please Share This Post in Your Social Media

ড. ইউনূসের ওপর প্রতিহিংসা-হয়রানি বন্ধ না হলে আমেরিকার সঙ্গে সম্পর্ক নষ্ট হতে পারে

Update Time : ০৫:৫৬:১৪ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১৪ মার্চ ২০২৪

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

যুক্তরাষ্ট্রের উচ্চকক্ষ সিনেটের দ্বিতীয় সর্বোচ্চ নেতা (মেজরিটি হুইপ) ডিক ডারবিন বলেছেন, অর্থনীতিবিদ ড. মুহাম্মদ ইউনূসের ওপর প্রতিহিংসার রাজনীতি বন্ধে সরকার ব্যর্থ হলে বাংলাদেশের সঙ্গে যুক্তরাষ্ট্রের দ্বিপক্ষীয় অংশীদারত্বে নেতিবাচক প্রভাব পড়তে পারে। সামাজিক মাধ্যম এক্সে দেওয়া বার্তায় ডারবান ড. মুহাম্মদ ইউনূসের বিরুদ্ধে বিচারের নামে হয়রানি বন্ধের আহ্বান জানিয়েছেন।

বৃহস্পতিবার (১৪ মার্চ) যুক্তরাষ্ট্রের স্থানীয় সময় ভোর ৩টা ২৯ মিনিটে সামাজিক মাধ্যমে এক্সে (সাবেক টুইটার) দেওয়া বার্তায় ইলিনয় অঙ্গরাজ্যের সিনেটর এই ডেমোক্রেট নেতা এমন মন্তব্য করেন।

ওয়াশিংটনে বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত মুহাম্মদ ইমরানের সঙ্গে বৈঠকের পর সিনেটর ডারবিন বলেন, বাংলাদেশের সঙ্গে দ্বিপক্ষীয় সুদীর্ঘ সম্পর্ককে যুক্তরাষ্ট্র গুরুত্ব দেয়। মিয়ানমার থেকে পালিয়ে বাংলাদেশে আসা রোহিঙ্গা শরণার্থীদের যেভাবে সহায়তা করেছে, আশ্রয় দিয়েছে আমি এর প্রশংসা করি। কিন্তু, মুহাম্মদ ইউনূসের সঙ্গে অনেকটা (সরকার) ব্যক্তিপর্যায়ের প্রতিহিংসা বন্ধে ব্যর্থ হলে বাংলাদেশের সঙ্গে যুক্তরাষ্ট্রের অংশীদারত্বে নেতিবাচক প্রভাব পড়বে।

২০১৩ সালে মার্কিন কংগ্রেসে অধ্যাপক ইউনূসকে কংগ্রেশনাল গোল্ড মেডাল পুরস্কার দেওয়ার বিষয়ে ডিক ডারবিন প্রধান ভূমিকা রেখেছিলেন। বৈশ্বিক দারিদ্র দূর করতে ড. ইউনূসের অগ্রবর্তী ভূমিকার স্বীকৃতি হিসেবে দেওয়া হয় এই পুরস্কার।