জাতীয় পার্টিকে নিয়ে মানুষের ধারণা ভালো না: জিএম কাদের

নিজস্ব প্রতিবেদক
  • Update Time : ০৫:০৮:০৪ অপরাহ্ন, শনিবার, ৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৪
  • / ৬৬ Time View

জাতীয় পার্টিকে নিয়ে মানুষের ধারণা ভালো না বলে মন্তব্য করেছেন দলটির চেয়ারম্যান গোলাম মোহাম্মদ (জিএম) কাদের। তিনি বলেন, এরশাদ সাহেবের নাম ও আদর্শ দিয়ে আরও দশটি দল যে কেউ গঠন করতে পারে। কিন্তু আমাদের দল থেকে ভেঙে নিয়ে আরেকটি দল গঠন করার পরিবেশ পরিস্থিতি এই মুহূর্তে দেখছি না। তবে একটা জিনিস আমি বলতে চাই, আমাদের দলের ব্যাপারে মানুষের উপলব্ধি ভালো না।

শনিবার (৩ ফেব্রুয়ারি) রাজধানীর বনানীতে জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যানের কার্যালয়ে আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে তিনি এ কথা বলেন।

জাতীয় পার্টির মধ্যে সংশোধন প্রয়োজন জানিয়ে জিএম কাদের বলেন, আমরা অন্য দলের মাধ্যমে নিয়ন্ত্রিত হয়েছি, সেটা পার্শিয়ালি কারেক্ট। আমরা সেখান থেকে বেরিয়ে আসার চেষ্টা করছি। আমাদের দলের মধ্যে ব্যাপকভাবে সংশোধন হওয়ার দরকার আছে।

তিনি বলেন, আমরা যদি সেটা করতে না পারি, তবে সামনের দিকে দল ভাঙবে না, তবে দলের অস্তিত্ব থাকবে না। দলকে মানুষ ভালোবাসবে না, দলের প্রতি মানুষের আস্থা থাকবে না।

এই মুহূর্তে দল ভাগ হওয়ার সম্ভাবনা নেই উল্লেখ করে জাপা চেয়ারম্যান বলেন, অনেকে বলেছে আমাদের দল ভাগ হয়ে যাবে। দল ভাগ হওয়ার সম্ভাবনা আমি এই মুহূর্তে এই প্রেক্ষিতে দেখছি না।

দলের নেতাকর্মীদের এক থাকার আহ্বান জানিয়ে তিনি বলেন, দলকে টেকাতে হলে সবাইকে একলাইনে থাকতে হবে। আমরা যদি ব্যর্থ হই তবে দল মানুষের কাছে গ্রহণযোগ্য হবে না। আমরা ভাঙন নিয়ে চিন্তিত নই। কিন্তু আমাদের নিজেদের মধ্যে যে ত্রুটি আছে সেগুলো সারিয়ে তুলতে হবে।

সাংবাদিক দম্পতি সাগর-রুনি হত্যার তদন্ত নিয়ে আইনমন্ত্রীর বক্তব্য প্রসঙ্গে জাতীয় সংসদের বিরোধী দলীয় নেতা বলেন, আমরা কি মধ্যযুগীয় সমাজব্যবস্থার দিকে যাচ্ছি? সরকারি দলের মন্ত্রীদের বক্তব্যে মনে হয় আমরা মধ্যযুগীয় ব্যবস্থায় চলে যাচ্ছি। হয়ত সাধারণ মানুষ এটি খেয়াল করে না।

তিনি বলেন, আইনমন্ত্রী সেদিন একটি কথা বললেন- সাগর-রুনির হত্যাকাণ্ডের বিষয়ে আরও ৫০ বছর লাগলে দিতে হবে। এটাকে আমি দেখেছি মধ্যযুগীয় ব্যবস্থার মতো। মধ্যযুগে পেশিশক্তির মাধ্যমে সবকিছু নিয়ন্ত্রণ করা হতো। অর্থাৎ জোর যার মুল্লুক তার। বিচারব্যবস্থা যদি বিলম্ব হয় তার মানে হচ্ছে, সে বিচার আর পাওয়া যাবে না। এই বিচার যদি আরো ৫০ বছর বিলম্ব হয় তাহলে এটি তো বিচারহীনতা হলো। তাহলে আমরা কি দেশকে বিচারহীনতা উপহার দিতে যাচ্ছি?

Tag :

Please Share This Post in Your Social Media

জাতীয় পার্টিকে নিয়ে মানুষের ধারণা ভালো না: জিএম কাদের

Update Time : ০৫:০৮:০৪ অপরাহ্ন, শনিবার, ৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৪

জাতীয় পার্টিকে নিয়ে মানুষের ধারণা ভালো না বলে মন্তব্য করেছেন দলটির চেয়ারম্যান গোলাম মোহাম্মদ (জিএম) কাদের। তিনি বলেন, এরশাদ সাহেবের নাম ও আদর্শ দিয়ে আরও দশটি দল যে কেউ গঠন করতে পারে। কিন্তু আমাদের দল থেকে ভেঙে নিয়ে আরেকটি দল গঠন করার পরিবেশ পরিস্থিতি এই মুহূর্তে দেখছি না। তবে একটা জিনিস আমি বলতে চাই, আমাদের দলের ব্যাপারে মানুষের উপলব্ধি ভালো না।

শনিবার (৩ ফেব্রুয়ারি) রাজধানীর বনানীতে জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যানের কার্যালয়ে আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে তিনি এ কথা বলেন।

জাতীয় পার্টির মধ্যে সংশোধন প্রয়োজন জানিয়ে জিএম কাদের বলেন, আমরা অন্য দলের মাধ্যমে নিয়ন্ত্রিত হয়েছি, সেটা পার্শিয়ালি কারেক্ট। আমরা সেখান থেকে বেরিয়ে আসার চেষ্টা করছি। আমাদের দলের মধ্যে ব্যাপকভাবে সংশোধন হওয়ার দরকার আছে।

তিনি বলেন, আমরা যদি সেটা করতে না পারি, তবে সামনের দিকে দল ভাঙবে না, তবে দলের অস্তিত্ব থাকবে না। দলকে মানুষ ভালোবাসবে না, দলের প্রতি মানুষের আস্থা থাকবে না।

এই মুহূর্তে দল ভাগ হওয়ার সম্ভাবনা নেই উল্লেখ করে জাপা চেয়ারম্যান বলেন, অনেকে বলেছে আমাদের দল ভাগ হয়ে যাবে। দল ভাগ হওয়ার সম্ভাবনা আমি এই মুহূর্তে এই প্রেক্ষিতে দেখছি না।

দলের নেতাকর্মীদের এক থাকার আহ্বান জানিয়ে তিনি বলেন, দলকে টেকাতে হলে সবাইকে একলাইনে থাকতে হবে। আমরা যদি ব্যর্থ হই তবে দল মানুষের কাছে গ্রহণযোগ্য হবে না। আমরা ভাঙন নিয়ে চিন্তিত নই। কিন্তু আমাদের নিজেদের মধ্যে যে ত্রুটি আছে সেগুলো সারিয়ে তুলতে হবে।

সাংবাদিক দম্পতি সাগর-রুনি হত্যার তদন্ত নিয়ে আইনমন্ত্রীর বক্তব্য প্রসঙ্গে জাতীয় সংসদের বিরোধী দলীয় নেতা বলেন, আমরা কি মধ্যযুগীয় সমাজব্যবস্থার দিকে যাচ্ছি? সরকারি দলের মন্ত্রীদের বক্তব্যে মনে হয় আমরা মধ্যযুগীয় ব্যবস্থায় চলে যাচ্ছি। হয়ত সাধারণ মানুষ এটি খেয়াল করে না।

তিনি বলেন, আইনমন্ত্রী সেদিন একটি কথা বললেন- সাগর-রুনির হত্যাকাণ্ডের বিষয়ে আরও ৫০ বছর লাগলে দিতে হবে। এটাকে আমি দেখেছি মধ্যযুগীয় ব্যবস্থার মতো। মধ্যযুগে পেশিশক্তির মাধ্যমে সবকিছু নিয়ন্ত্রণ করা হতো। অর্থাৎ জোর যার মুল্লুক তার। বিচারব্যবস্থা যদি বিলম্ব হয় তার মানে হচ্ছে, সে বিচার আর পাওয়া যাবে না। এই বিচার যদি আরো ৫০ বছর বিলম্ব হয় তাহলে এটি তো বিচারহীনতা হলো। তাহলে আমরা কি দেশকে বিচারহীনতা উপহার দিতে যাচ্ছি?