ঘূর্ণিঝড় রেমাল: জরুরি নির্দেশনা দিলেন মেয়র আতিক

নিজস্ব প্রতিবেদক
  • Update Time : ১০:২৭:৩৮ অপরাহ্ন, রবিবার, ২৬ মে ২০২৪
  • / 18

ঘূর্ণিঝড় রেমাল মোকাবিলায় সংশ্লিষ্ট অফিসারদের জরুরি নির্দেশনা দিয়েছেন ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের (ডিএনসিসি) মেয়র মো. আতিকুল ইসলাম। রোববার (২৬ মে) রাজধানীর গুলশান নগর ভবনে এক জরুরি সভায় তিনি এ নির্দেশনা দেন।

নির্দেশনার মধ্যে রয়েছে সংশ্লিষ্ট অফিসারদের সব ধরনের ছুটি বাতিল, দ্রুত পানি নিষ্কাশনে কুইক রেসপন্স টিম প্রস্তুত, ঝড়ে কোথাও কোনো গাছ পড়ে রাস্তা ব্লক হলে দ্রুত অপসারণসহ নগরবাসীর সব ধরনের সহযোগিতায় এগিয়ে আসা।

এ ছাড়াও জরুরি প্রয়োজনে নগরবাসীকে ডিএনসিসির হটলাইন ১৬১০৬ নম্বরে ফোন করার জন্য আহ্বান জানান মেয়র।

এ বিষয়ে আতিকুল ইসলাম বলেন, শক্তিশালী ঘূর্ণিঝড় যেকোনো সময় উপকূলে আছড়ে পড়তে পারে। এর প্রভাবে ভারী বৃষ্টিপাতের পূর্বাভাস দিয়েছে আবহাওয়া অফিস। ঝড় ও ভারী বৃষ্টিপাতে নগরবাসীর দুর্ভোগ যেন না হয় সেজন্য সংশ্লিষ্ট সব কর্মকর্তা ও কর্মচারীকে সচেষ্ট থাকতে হবে। বিশেষ করে প্রকৌশল বিভাগ ও বর্জ্য ব্যবস্থাপনা বিভাগ সমন্বিতভাবে কার্যক্রম গ্রহণ করবে।

তিনি বলেন, বৃষ্টিপাত থেকে যাতে শহরের কোথাও কোনো জলাবদ্ধতা না দেখা দেয় সেজন্য সবাইকে সজাগ থাকতে হবে। কোথাও কোনো রাস্তাঘাট ব্লক হলে সেটি দ্রুত সময়ের মধ্যে পরিষ্কারের জন্য কাজ করতে হবে। কুইক রেসপন্স টিম সার্বক্ষণিক কাজ করবে।

Tag :

Please Share This Post in Your Social Media

ঘূর্ণিঝড় রেমাল: জরুরি নির্দেশনা দিলেন মেয়র আতিক

Update Time : ১০:২৭:৩৮ অপরাহ্ন, রবিবার, ২৬ মে ২০২৪

ঘূর্ণিঝড় রেমাল মোকাবিলায় সংশ্লিষ্ট অফিসারদের জরুরি নির্দেশনা দিয়েছেন ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের (ডিএনসিসি) মেয়র মো. আতিকুল ইসলাম। রোববার (২৬ মে) রাজধানীর গুলশান নগর ভবনে এক জরুরি সভায় তিনি এ নির্দেশনা দেন।

নির্দেশনার মধ্যে রয়েছে সংশ্লিষ্ট অফিসারদের সব ধরনের ছুটি বাতিল, দ্রুত পানি নিষ্কাশনে কুইক রেসপন্স টিম প্রস্তুত, ঝড়ে কোথাও কোনো গাছ পড়ে রাস্তা ব্লক হলে দ্রুত অপসারণসহ নগরবাসীর সব ধরনের সহযোগিতায় এগিয়ে আসা।

এ ছাড়াও জরুরি প্রয়োজনে নগরবাসীকে ডিএনসিসির হটলাইন ১৬১০৬ নম্বরে ফোন করার জন্য আহ্বান জানান মেয়র।

এ বিষয়ে আতিকুল ইসলাম বলেন, শক্তিশালী ঘূর্ণিঝড় যেকোনো সময় উপকূলে আছড়ে পড়তে পারে। এর প্রভাবে ভারী বৃষ্টিপাতের পূর্বাভাস দিয়েছে আবহাওয়া অফিস। ঝড় ও ভারী বৃষ্টিপাতে নগরবাসীর দুর্ভোগ যেন না হয় সেজন্য সংশ্লিষ্ট সব কর্মকর্তা ও কর্মচারীকে সচেষ্ট থাকতে হবে। বিশেষ করে প্রকৌশল বিভাগ ও বর্জ্য ব্যবস্থাপনা বিভাগ সমন্বিতভাবে কার্যক্রম গ্রহণ করবে।

তিনি বলেন, বৃষ্টিপাত থেকে যাতে শহরের কোথাও কোনো জলাবদ্ধতা না দেখা দেয় সেজন্য সবাইকে সজাগ থাকতে হবে। কোথাও কোনো রাস্তাঘাট ব্লক হলে সেটি দ্রুত সময়ের মধ্যে পরিষ্কারের জন্য কাজ করতে হবে। কুইক রেসপন্স টিম সার্বক্ষণিক কাজ করবে।