ঘূর্ণিঝড় রেমাল কে কেন্দ্র করে ভারতের চার রাজ্যে রেড অ্যালার্ট জারি

নিজস্ব প্রতিবেদক
  • Update Time : ০৮:৫৫:৩৩ অপরাহ্ন, শনিবার, ২৫ মে ২০২৪
  • / 25

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

বাংলাদেশ ও ভারতের উপকূলীয় অঞ্চলের দিকে ঘূর্ণিঝড় রেমাল হয়ে ধেয়ে আসছে বঙ্গোপসাগরে সৃষ্ট গভীর নিন্মচাপ। যা আজ শনিবার (২৫ মে) সন্ধ্যায় ঘূর্ণিঝড়ে রূপ নিতে পারে। এই ঘূর্ণিঝড়ের প্রভাবে ব্যাপক বৃষ্টিপাতের আশঙ্কা থেকে ভারতের চারটি রাজ্যে রেড অ্যালার্ট জারি করেছে দেশটির আবহাওয়া বিভাগ (আইএমডি)।

আজ সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ‘এক্স’ এ করা এক পোস্টে আইএমডি বলেছে, “রেড অ্যালার্ট: নাগাল্যান্ড, মণিপুর, মিজোরাম এবং ত্রিপুরাতে আগামী ২৭ মে থেমে থেমে ভারী থেকে অতি ভারী বৃষ্টিপাত হবে। ওইদিন প্রদেশগুলোতে ২০৪ দশমিক ৪ মিলিমিটার বৃষ্টিপাত হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে বলেও জানিয়েছে সংস্থাটি।

বঙ্গোপসাগরে যে ঘূর্ণিঝড়টি সৃষ্টি হতে যাচ্ছে সেটির নাম হবে রেমাল। এটি বাংলাদেশ সময় রোববার সকালে অতিপ্রবল ঘূর্ণিঝড়ে রূপ নেবে। এরপর এদিন মধ্যরাত থেকে অতিপ্রবল ঘূর্ণিঝড় হিসেবেই এটি তাণ্ডব চালানো শুরু করবে।

ভারতের আবহাওয়া বিভাগ জানিয়েছে, বাংলাদেশের খেপুপাড়া এবং পশ্চিমবঙ্গের সাগরদ্বীপের মাঝামাঝি অঞ্চল দিয়ে ঘূর্ণিঝড়টি অতিক্রম করবে। ওই সময় ঘূর্ণিঝড়টির বাতাসের গতিবেগ থাকবে ঘণ্টায় ১১০ থেকে ১২০ কিলোমিটার। আর ঝড়ো বাতাসের গতিবেগ থাকবে ১৩০ কিলোমিটার ঘণ্টা।

বাংলাদেশের দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ প্রতিমন্ত্রী মহিবুর রহমান জানিয়েছেন, ঘূর্ণিঝড়টির কারণে শনিবার রাত থেকেই মহাবিপদ সংকেত জারি করা হতে পারে। এটি বঙ্গোপসাগরের মধ্যাঞ্চলে অবস্থান করছে এবং শেষ ৬ ঘণ্টায় প্রতি ঘণ্টায় ১১ কিলোমিটার করে এগিয়েছে এটি।

ঘূর্ণিঝড়টির মূল আঘাত বাংলাদেশ নাকি ভারতের পশ্চিবঙ্গ হবে সেটি জানার চেষ্টা করা হচ্ছে। এ কারণে শুরু থেকেই ঘূর্ণিঝড়টির গতিবিধির ওপর লক্ষ্য রাখা হচ্ছে।

Tag :

Please Share This Post in Your Social Media

ঘূর্ণিঝড় রেমাল কে কেন্দ্র করে ভারতের চার রাজ্যে রেড অ্যালার্ট জারি

Update Time : ০৮:৫৫:৩৩ অপরাহ্ন, শনিবার, ২৫ মে ২০২৪

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

বাংলাদেশ ও ভারতের উপকূলীয় অঞ্চলের দিকে ঘূর্ণিঝড় রেমাল হয়ে ধেয়ে আসছে বঙ্গোপসাগরে সৃষ্ট গভীর নিন্মচাপ। যা আজ শনিবার (২৫ মে) সন্ধ্যায় ঘূর্ণিঝড়ে রূপ নিতে পারে। এই ঘূর্ণিঝড়ের প্রভাবে ব্যাপক বৃষ্টিপাতের আশঙ্কা থেকে ভারতের চারটি রাজ্যে রেড অ্যালার্ট জারি করেছে দেশটির আবহাওয়া বিভাগ (আইএমডি)।

আজ সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ‘এক্স’ এ করা এক পোস্টে আইএমডি বলেছে, “রেড অ্যালার্ট: নাগাল্যান্ড, মণিপুর, মিজোরাম এবং ত্রিপুরাতে আগামী ২৭ মে থেমে থেমে ভারী থেকে অতি ভারী বৃষ্টিপাত হবে। ওইদিন প্রদেশগুলোতে ২০৪ দশমিক ৪ মিলিমিটার বৃষ্টিপাত হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে বলেও জানিয়েছে সংস্থাটি।

বঙ্গোপসাগরে যে ঘূর্ণিঝড়টি সৃষ্টি হতে যাচ্ছে সেটির নাম হবে রেমাল। এটি বাংলাদেশ সময় রোববার সকালে অতিপ্রবল ঘূর্ণিঝড়ে রূপ নেবে। এরপর এদিন মধ্যরাত থেকে অতিপ্রবল ঘূর্ণিঝড় হিসেবেই এটি তাণ্ডব চালানো শুরু করবে।

ভারতের আবহাওয়া বিভাগ জানিয়েছে, বাংলাদেশের খেপুপাড়া এবং পশ্চিমবঙ্গের সাগরদ্বীপের মাঝামাঝি অঞ্চল দিয়ে ঘূর্ণিঝড়টি অতিক্রম করবে। ওই সময় ঘূর্ণিঝড়টির বাতাসের গতিবেগ থাকবে ঘণ্টায় ১১০ থেকে ১২০ কিলোমিটার। আর ঝড়ো বাতাসের গতিবেগ থাকবে ১৩০ কিলোমিটার ঘণ্টা।

বাংলাদেশের দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ প্রতিমন্ত্রী মহিবুর রহমান জানিয়েছেন, ঘূর্ণিঝড়টির কারণে শনিবার রাত থেকেই মহাবিপদ সংকেত জারি করা হতে পারে। এটি বঙ্গোপসাগরের মধ্যাঞ্চলে অবস্থান করছে এবং শেষ ৬ ঘণ্টায় প্রতি ঘণ্টায় ১১ কিলোমিটার করে এগিয়েছে এটি।

ঘূর্ণিঝড়টির মূল আঘাত বাংলাদেশ নাকি ভারতের পশ্চিবঙ্গ হবে সেটি জানার চেষ্টা করা হচ্ছে। এ কারণে শুরু থেকেই ঘূর্ণিঝড়টির গতিবিধির ওপর লক্ষ্য রাখা হচ্ছে।