গোল্ডস্যান্ডস গ্রুপ পর্যটন শিল্পে আন্তর্জাতিক ৫ তারকা হোটেল তৈরীতে অন্যতম অবদান রাখছে

নিজস্ব প্রতিবেদক
  • Update Time : ০৮:২৮:৪৩ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ৬ এপ্রিল ২০২৩
  • / ১৫৮ Time View

মো: নুরুল আমিন

পর্যটন বিশেষজ্ঞ

এক শসস্ত্র সংগ্রামের মাধ্যমে প্রতিষ্ঠিত আমরা বাঙালি জাতি। আমরা বীরের জাতি যে জাতি কখনো কোন পরাজয়ের নিকট দমিয়ে যাওয়ার মত নয়, মাথা নত করে পিছিয়ে যাওয়ার মত জাতি আমরা নয়। বাঙালি জাতি এক সংগ্রামী জাতি। সংগ্রাম করেই আমরা নিজেদের পায়ে দাঁড়াতে শিখেছি। আমারে কি না আছে ? বিশ্বের দিকে তাকালে দেখা যাবে এই বীরের জাতির সোনার ছেলেরা বিশ্বের আনাচে কানাচে নিজেদের জানান দেয়ার জন্য একটুও থেমে নেই। তারা নিজেদের আত্মমর্যাদাকে প্রতিষ্ঠিত করার জন্য দেশ-বিদেশে এক মহা কর্মযজ্ঞে লিপ্ত রয়েছে। নিজের দেশ এবং অর্থনীতিকে ফুটিয়ে তোলার জন্য অবিরত সংগ্রামের মাধ্যমে তারা নিজেদের এই জাতির নিকট অর্পণ করেছেন। মানব সম্পদে আমরা বিশ্বসেরা, কৃষি, মৎস্য, প্রাণী সম্পদেও আমরা ইচ্ছে করলে শতভাগ স্বয়ংসম্পূর্ণ হতে পারি।

আমাদের সর্ববৃহৎ রপ্তানি শিল্প, পোষাক শিল্প দিয়ে সারা বিশ্বকে আমরা মাতিয়ে রেখেছি। শতভাগ রপ্তানিযোগ্য বিশাল পোশাক শিল্পখাত দিয়ে আমরা যেভাবে বিশ্বকে মাতিয়ে রেখেছি তেমনি এই জাতির জন্য আরেকটি বৈদেশিক মুদ্রা অর্জনের বিশাল সম্ভাবনার খাত হচ্ছে পর্যটন শিল্প। বাংলাদেশের পর্যটন শিল্পকে আমরা যদি সুশৃঙ্খল এই নিরাপত্তার বেস্টুনীতে গড়তে পারি তাহলে বিদেশী পর্যটকরা কেন! আমাদের দেশের পর্যটকরা আকৃষ্ট হবে। আমাদের সোনার ছেলেরা বিদেশ থেকে ডলার এনে দেশের পর্যটন শিল্পে দুহাতে খরচ করবে, আবার বিনিয়োগও করবে। কারণ আমাদের আবহাওয়া নাতিশীতোষ্ণ এবং প্রাকৃতিক পরিবেশ মনোরম ও মনোমুগ্ধকর। বিদেশীরা একবার ঘুরতে এসে যদি পরিবেশের সাথে খাপ খাইয়ে ভ্রমণ করতে আনন্দ পায় তাহলে তারা প্রতিবছর আমাদের দেশে ঘুরতে আসবে। আর তখনই বৈদেশিক মুদ্রা অর্জনের অবারিত সুয়োগ সৃষ্টি হবে। বাংলাদেশে যত পর্যটনের স্পট রয়েছে সবগুলোকে সরকারের ব্যবস্থাপনায় ভ্রমণ এবং বিনোদন উপযোগী করে নজর কাড়া পরিবেশ সৃষ্টি করতে হবে। এই পর্যটন শিল্পে ব্যাপক কর্মসংস্থানের সুযোগ সৃষ্টি হবে।

শিক্ষিত ও স্বশিক্ষিত ছেলে মেয়েরা এই পর্যটন শিল্পে আত্মনিয়োগ করে তারা যেমনি সামাজিকভাবে প্রতিষ্ঠিত হবে তেমনি অর্থনীতিতে এগিয়ে যাবে দেশ। গোল্ডস্যান্ডস হোটেলস এন্ড রিসোর্টস লিমিটেড তাদের নির্মানধীন হোটেলগুলোর সম্মানিত বিনিয়োগকারীদের জন্য নিশ্চিত করছে “হোটেলগুলো হবে আন্তর্জাতিক ৫ তারকা মানের, আরামদায়ক নির্মল পরিবেশ, আন্তর্জাতিক মানের নিরাপত্তা, উন্নত ও মার্জিত আচারনের মাধ্যমে হোটেল কর্মীরা সেবা গ্রহীতাদের আধুনিক সেবা নিশ্চিত করবে।” সকল হোটেলের আর্কিটেকচারিয়াল ডিজাইন করছে সিংঙ্গাাপুরিয়ান ওয়ার্ল্ড ক্লাস আর্কিটেক্ট কোম্পানী Surbana Jurong যার আধুনিক আরবান-ইনফ্রাস্ট্রাকচার তৈরিতে বিশ্বসেরা। তিনি আরো বলেন,“বিনিয়োগকারীরা হোটেরগুলোর স্যুট ও আংশিক মালিকানা ক্রয় করলে পাবেন সাফ-কাবলা মালিকানা এবং আজীবন হালাল ও সুদমুক্ত নিশ্চিত আয়। আমরা সততার সঙ্গে পর্যটন খাতকে আন্তর্জাতিক মানে উন্নীত করার চেষ্টায় আন্তর্জাতিক সমুদ্র সৈকতে হোটেল এন্ড রিসোর্ট গড়ে তুলে দেশি বিদেশি পর্যটকদের স্বাচ্ছন্দে অবকাশযাপন করে পরিবেশবান্ধব পরিবেশে আমাদের Goldsands Group এর পাঁচ তারকা মানের Hotels & Resorts এ স্বাচ্ছন্দে থেকে পর্যটন খাতকে ত¦রানি¦ত করতে পারে। পরিশেষে তিনি আরো জানান,“ গোল্ডস্যান্ডস গ্রুপের তিনটি হোটেল প্রজেক্টের কাজ দ্রুত গতিতে এগিয়ে চলছে। গোল্ডস্যান্ডস গ্রুপের কর্পোরেট হেড অফিস (নাসা হাইটস, গুলশান-১, ঢাকা-১২১২, ফোন-০১৮৭৭৭১৫৩৩৩) থেকে তথ্য সংগ্রহ ও হোটলের মালিকানা ক্রয় করা যাবে।

Tag :

Please Share This Post in Your Social Media

গোল্ডস্যান্ডস গ্রুপ পর্যটন শিল্পে আন্তর্জাতিক ৫ তারকা হোটেল তৈরীতে অন্যতম অবদান রাখছে

Update Time : ০৮:২৮:৪৩ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ৬ এপ্রিল ২০২৩

মো: নুরুল আমিন

পর্যটন বিশেষজ্ঞ

এক শসস্ত্র সংগ্রামের মাধ্যমে প্রতিষ্ঠিত আমরা বাঙালি জাতি। আমরা বীরের জাতি যে জাতি কখনো কোন পরাজয়ের নিকট দমিয়ে যাওয়ার মত নয়, মাথা নত করে পিছিয়ে যাওয়ার মত জাতি আমরা নয়। বাঙালি জাতি এক সংগ্রামী জাতি। সংগ্রাম করেই আমরা নিজেদের পায়ে দাঁড়াতে শিখেছি। আমারে কি না আছে ? বিশ্বের দিকে তাকালে দেখা যাবে এই বীরের জাতির সোনার ছেলেরা বিশ্বের আনাচে কানাচে নিজেদের জানান দেয়ার জন্য একটুও থেমে নেই। তারা নিজেদের আত্মমর্যাদাকে প্রতিষ্ঠিত করার জন্য দেশ-বিদেশে এক মহা কর্মযজ্ঞে লিপ্ত রয়েছে। নিজের দেশ এবং অর্থনীতিকে ফুটিয়ে তোলার জন্য অবিরত সংগ্রামের মাধ্যমে তারা নিজেদের এই জাতির নিকট অর্পণ করেছেন। মানব সম্পদে আমরা বিশ্বসেরা, কৃষি, মৎস্য, প্রাণী সম্পদেও আমরা ইচ্ছে করলে শতভাগ স্বয়ংসম্পূর্ণ হতে পারি।

আমাদের সর্ববৃহৎ রপ্তানি শিল্প, পোষাক শিল্প দিয়ে সারা বিশ্বকে আমরা মাতিয়ে রেখেছি। শতভাগ রপ্তানিযোগ্য বিশাল পোশাক শিল্পখাত দিয়ে আমরা যেভাবে বিশ্বকে মাতিয়ে রেখেছি তেমনি এই জাতির জন্য আরেকটি বৈদেশিক মুদ্রা অর্জনের বিশাল সম্ভাবনার খাত হচ্ছে পর্যটন শিল্প। বাংলাদেশের পর্যটন শিল্পকে আমরা যদি সুশৃঙ্খল এই নিরাপত্তার বেস্টুনীতে গড়তে পারি তাহলে বিদেশী পর্যটকরা কেন! আমাদের দেশের পর্যটকরা আকৃষ্ট হবে। আমাদের সোনার ছেলেরা বিদেশ থেকে ডলার এনে দেশের পর্যটন শিল্পে দুহাতে খরচ করবে, আবার বিনিয়োগও করবে। কারণ আমাদের আবহাওয়া নাতিশীতোষ্ণ এবং প্রাকৃতিক পরিবেশ মনোরম ও মনোমুগ্ধকর। বিদেশীরা একবার ঘুরতে এসে যদি পরিবেশের সাথে খাপ খাইয়ে ভ্রমণ করতে আনন্দ পায় তাহলে তারা প্রতিবছর আমাদের দেশে ঘুরতে আসবে। আর তখনই বৈদেশিক মুদ্রা অর্জনের অবারিত সুয়োগ সৃষ্টি হবে। বাংলাদেশে যত পর্যটনের স্পট রয়েছে সবগুলোকে সরকারের ব্যবস্থাপনায় ভ্রমণ এবং বিনোদন উপযোগী করে নজর কাড়া পরিবেশ সৃষ্টি করতে হবে। এই পর্যটন শিল্পে ব্যাপক কর্মসংস্থানের সুযোগ সৃষ্টি হবে।

শিক্ষিত ও স্বশিক্ষিত ছেলে মেয়েরা এই পর্যটন শিল্পে আত্মনিয়োগ করে তারা যেমনি সামাজিকভাবে প্রতিষ্ঠিত হবে তেমনি অর্থনীতিতে এগিয়ে যাবে দেশ। গোল্ডস্যান্ডস হোটেলস এন্ড রিসোর্টস লিমিটেড তাদের নির্মানধীন হোটেলগুলোর সম্মানিত বিনিয়োগকারীদের জন্য নিশ্চিত করছে “হোটেলগুলো হবে আন্তর্জাতিক ৫ তারকা মানের, আরামদায়ক নির্মল পরিবেশ, আন্তর্জাতিক মানের নিরাপত্তা, উন্নত ও মার্জিত আচারনের মাধ্যমে হোটেল কর্মীরা সেবা গ্রহীতাদের আধুনিক সেবা নিশ্চিত করবে।” সকল হোটেলের আর্কিটেকচারিয়াল ডিজাইন করছে সিংঙ্গাাপুরিয়ান ওয়ার্ল্ড ক্লাস আর্কিটেক্ট কোম্পানী Surbana Jurong যার আধুনিক আরবান-ইনফ্রাস্ট্রাকচার তৈরিতে বিশ্বসেরা। তিনি আরো বলেন,“বিনিয়োগকারীরা হোটেরগুলোর স্যুট ও আংশিক মালিকানা ক্রয় করলে পাবেন সাফ-কাবলা মালিকানা এবং আজীবন হালাল ও সুদমুক্ত নিশ্চিত আয়। আমরা সততার সঙ্গে পর্যটন খাতকে আন্তর্জাতিক মানে উন্নীত করার চেষ্টায় আন্তর্জাতিক সমুদ্র সৈকতে হোটেল এন্ড রিসোর্ট গড়ে তুলে দেশি বিদেশি পর্যটকদের স্বাচ্ছন্দে অবকাশযাপন করে পরিবেশবান্ধব পরিবেশে আমাদের Goldsands Group এর পাঁচ তারকা মানের Hotels & Resorts এ স্বাচ্ছন্দে থেকে পর্যটন খাতকে ত¦রানি¦ত করতে পারে। পরিশেষে তিনি আরো জানান,“ গোল্ডস্যান্ডস গ্রুপের তিনটি হোটেল প্রজেক্টের কাজ দ্রুত গতিতে এগিয়ে চলছে। গোল্ডস্যান্ডস গ্রুপের কর্পোরেট হেড অফিস (নাসা হাইটস, গুলশান-১, ঢাকা-১২১২, ফোন-০১৮৭৭৭১৫৩৩৩) থেকে তথ্য সংগ্রহ ও হোটলের মালিকানা ক্রয় করা যাবে।