খুলে দেওয়া হয়েছে স্বপ্নের পদ্মা: টোল প্লাজায় পদ্মা জয়ের উৎসব

নিজস্ব প্রতিবেদক
  • Update Time : ১০:৩৪:১১ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ২৬ জুন ২০২২
  • / 227

খুলে দেওয়া হয়েছে স্বপ্নের পদ্মা: টোল প্লাজায় পদ্মা জয়ের উৎসব

মুন্সিগঞ্জ প্রতিনিধি:

সাধারণ যান চলাচলের জন্য খুলে দেওয়া হয়েছে স্বপ্নের পদ্মা সেতুর দ্বার। সকাল ৬টায় যান চলাচল চালুর কথা থাকলেও উৎসুক চালকদের আগ্রহে ৫টা ৪০ মিনিটেই টোল দেওয়া শুরু হয়। সেতুর দুই প্রান্তের টোল প্লাজা দিয়ে সেতুতে উঠতে থাকে শত শত যানবাহন। স্বপ্নের সেতু দিয়ে নদী পার হওয়ার আনন্দে বাঁধভাঙা উচ্ছ্বাস দেখা যায় মুন্সিগঞ্জের মাওয়া টোল প্লাজায়।

মোটরসাইকেল, ব্যক্তিগত গাড়ি, ট্রাক, প্রাইভেটকার, পিকআপসহ রয়েছে পদ্মা সেতু দেখতে আশা হাজার হাজার মানুষ। নির্ধারিত টোল দিয়ে সেতুতে উঠতে থাকেন সবাই। সবার মুখে হাসিমুখ, গণমাধ্যমকর্মীদের হাত নেড়ে শুভেচ্ছা জানান অনেকে। অনেকের মুখে আবার ‘জয় বাংলা’ স্লোগান।

শরীয়তপুরগামী মোটরসাইকেল আরোহী সুরুজ রহমান জানান, অবশেষে স্বপ্ন পূরণ হচ্ছে। ভোর চারটার সময় এসেছি স্বপ্নের সেতুতে। অনেক অনেক যানবাহন আছে সবাই আনন্দিত, আমরা সবাই অনেক খুশি।

শাহিনুর খন্দরকার জানান, শনিবারই মাদারীপুরে বাসায় যাওয়ার কথা ছিলো। তবে পদ্মা সেতু দিয়ে যাওয়ার জন্য আজ এসেছি। এ আনন্দ বলে বোঝাতে পারবো না।

ভোরের আলোয় পদ্মা সেতুতে চলাচল শুরু

রহমত আলী বলেন, মাননীয় প্রধানমন্ত্রীকে ধন্যবাদ। তিনি পারেন, সেটাই প্রমাণ করে দেখালেন। দুর্ভোগের দিন শেষ। বঙ্গবন্ধুর সোনার বাংলাদেশ।

কেরানীগঞ্জ থেকে পরিবার নিয়ে সেতু দেখতে আসা আবুল হাসেম বলেন, কত কত ষড়যন্ত্র হয়েছে, কিন্তু প্রধানমন্ত্রীর দৃঢ়তার কারণেই এই সেতু হয়েছে। শেখের বেটি প্রমাণ করে দিলেন তিনি পারেন। পরিবার নিয়ে এসেছি শুধু সেতুটাকে দেখার জন্য।

সেতু পার হতে রাত থেকেই সেতু অভিমুখে ঢাকা-মাওয়া এক্সপ্রেস ওয়ের দোগাছি, খানবাড়ি এলাকায় ভিড় জমায় হাজার হাজার গাড়ি। আইনশৃঙ্খলা নিয়ন্ত্রণে মোতায়েন রয়েছে পুলিশ।

Please Share This Post in Your Social Media

খুলে দেওয়া হয়েছে স্বপ্নের পদ্মা: টোল প্লাজায় পদ্মা জয়ের উৎসব

Update Time : ১০:৩৪:১১ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ২৬ জুন ২০২২

মুন্সিগঞ্জ প্রতিনিধি:

সাধারণ যান চলাচলের জন্য খুলে দেওয়া হয়েছে স্বপ্নের পদ্মা সেতুর দ্বার। সকাল ৬টায় যান চলাচল চালুর কথা থাকলেও উৎসুক চালকদের আগ্রহে ৫টা ৪০ মিনিটেই টোল দেওয়া শুরু হয়। সেতুর দুই প্রান্তের টোল প্লাজা দিয়ে সেতুতে উঠতে থাকে শত শত যানবাহন। স্বপ্নের সেতু দিয়ে নদী পার হওয়ার আনন্দে বাঁধভাঙা উচ্ছ্বাস দেখা যায় মুন্সিগঞ্জের মাওয়া টোল প্লাজায়।

মোটরসাইকেল, ব্যক্তিগত গাড়ি, ট্রাক, প্রাইভেটকার, পিকআপসহ রয়েছে পদ্মা সেতু দেখতে আশা হাজার হাজার মানুষ। নির্ধারিত টোল দিয়ে সেতুতে উঠতে থাকেন সবাই। সবার মুখে হাসিমুখ, গণমাধ্যমকর্মীদের হাত নেড়ে শুভেচ্ছা জানান অনেকে। অনেকের মুখে আবার ‘জয় বাংলা’ স্লোগান।

শরীয়তপুরগামী মোটরসাইকেল আরোহী সুরুজ রহমান জানান, অবশেষে স্বপ্ন পূরণ হচ্ছে। ভোর চারটার সময় এসেছি স্বপ্নের সেতুতে। অনেক অনেক যানবাহন আছে সবাই আনন্দিত, আমরা সবাই অনেক খুশি।

শাহিনুর খন্দরকার জানান, শনিবারই মাদারীপুরে বাসায় যাওয়ার কথা ছিলো। তবে পদ্মা সেতু দিয়ে যাওয়ার জন্য আজ এসেছি। এ আনন্দ বলে বোঝাতে পারবো না।

ভোরের আলোয় পদ্মা সেতুতে চলাচল শুরু

রহমত আলী বলেন, মাননীয় প্রধানমন্ত্রীকে ধন্যবাদ। তিনি পারেন, সেটাই প্রমাণ করে দেখালেন। দুর্ভোগের দিন শেষ। বঙ্গবন্ধুর সোনার বাংলাদেশ।

কেরানীগঞ্জ থেকে পরিবার নিয়ে সেতু দেখতে আসা আবুল হাসেম বলেন, কত কত ষড়যন্ত্র হয়েছে, কিন্তু প্রধানমন্ত্রীর দৃঢ়তার কারণেই এই সেতু হয়েছে। শেখের বেটি প্রমাণ করে দিলেন তিনি পারেন। পরিবার নিয়ে এসেছি শুধু সেতুটাকে দেখার জন্য।

সেতু পার হতে রাত থেকেই সেতু অভিমুখে ঢাকা-মাওয়া এক্সপ্রেস ওয়ের দোগাছি, খানবাড়ি এলাকায় ভিড় জমায় হাজার হাজার গাড়ি। আইনশৃঙ্খলা নিয়ন্ত্রণে মোতায়েন রয়েছে পুলিশ।