খুলনায় গৃহবধূর চোখে-মুখে সুপারগ্লু লাগিয়ে ধর্ষণ

নিজস্ব প্রতিবেদক
  • Update Time : ০৬:৩৪:১০ অপরাহ্ন, সোমবার, ১২ ফেব্রুয়ারী ২০২৪
  • / ৩৪ Time View

জেলা প্রতিনিধি

খুলনার পাইকগাছায় এক গৃহবধূর হাত-পা বেঁধে চোখে-মুখে সুপার গ্লু আঠা লাগিয়ে এক গৃহবধূকে (৪৫) দলবদ্ধ ধর্ষণ করা হয়েছে।

রোববার (১১ ফেব্রুয়ারি) দিবাগত রাতের কোনো একসময় এ ঘটনা ঘটে বলে জানা গেছে। এছাড়া কানের দুল ও স্বর্ণালংকারসহ কিছু মালামাল নিয়ে গেছে দুর্বৃত্তরা।

সোমবার ভোরে প্রতিবেশীরা তাকে উদ্ধার করে খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ওয়ান-স্টপ ক্রাইসিস সেলে (ওসিসি) ভর্তি করেন। বর্তমানে তিনি সেখানে চিকিৎসাধীন।

ভুক্তভোগীর পরিবার সূত্রে জানা গেছে, ওই গৃহবধূর স্বামী কাঁচামালের ব্যবসা করেন। পড়ালেখার জন্য তাদের দুই ছেলে-মেয়েও বাইরে থাকেন। রোববার রাতে দুর্বৃত্তরা পাশের গাছ বেয়ে ছাদে উঠে ঘরে ঢোকে। এরপর ওই গৃহবধূর হাত-পা বেঁধে চোখে-মুখে আঠা লাগিয়ে ধর্ষণ করে দুর্বৃত্তরা। এ সময় ঘরে থাকা নগদ দুই লাখ টাকা ও স্বর্ণালংকার লুট করে নিয়ে যায় তারা।

ওই নারীর ছেলে বলেন, বাড়ি থেকে টাকা ও স্বর্ণালংকার লুট হয়েছে। মায়ের চিকিৎসার জন্য তারা এখন খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে আছেন।

হাসপাতালের আবাসিক চিকিৎসা কর্মকর্তা (আরএমও) চিকিৎসক সুমন রায় বলেন, এক নারী ধর্ষণের শিকার হয়েছেন অভিযোগ করে তাকে আজ সকালে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। তার শরীরের বিভিন্ন জায়গায় আঘাতের চিহ্ন আছে। এই মুহূর্তে তার মুখ ও চোখ রক্ষার জন্য অস্ত্রোপচার করা হচ্ছে। তার স্বাস্থ্য পরীক্ষা করা হবে।

পাইকগাছা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) ওবাইদুর রহমান বলেন, কী কারণে, কারা ওই নারীকে ধর্ষণ করেছে, ব্যাপারটি এখন নিশ্চিত হওয়া যায়নি। এ ঘটনার তদন্ত চলছে। এখনো মামলা হয়নি।

Tag :

Please Share This Post in Your Social Media

খুলনায় গৃহবধূর চোখে-মুখে সুপারগ্লু লাগিয়ে ধর্ষণ

Update Time : ০৬:৩৪:১০ অপরাহ্ন, সোমবার, ১২ ফেব্রুয়ারী ২০২৪

জেলা প্রতিনিধি

খুলনার পাইকগাছায় এক গৃহবধূর হাত-পা বেঁধে চোখে-মুখে সুপার গ্লু আঠা লাগিয়ে এক গৃহবধূকে (৪৫) দলবদ্ধ ধর্ষণ করা হয়েছে।

রোববার (১১ ফেব্রুয়ারি) দিবাগত রাতের কোনো একসময় এ ঘটনা ঘটে বলে জানা গেছে। এছাড়া কানের দুল ও স্বর্ণালংকারসহ কিছু মালামাল নিয়ে গেছে দুর্বৃত্তরা।

সোমবার ভোরে প্রতিবেশীরা তাকে উদ্ধার করে খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ওয়ান-স্টপ ক্রাইসিস সেলে (ওসিসি) ভর্তি করেন। বর্তমানে তিনি সেখানে চিকিৎসাধীন।

ভুক্তভোগীর পরিবার সূত্রে জানা গেছে, ওই গৃহবধূর স্বামী কাঁচামালের ব্যবসা করেন। পড়ালেখার জন্য তাদের দুই ছেলে-মেয়েও বাইরে থাকেন। রোববার রাতে দুর্বৃত্তরা পাশের গাছ বেয়ে ছাদে উঠে ঘরে ঢোকে। এরপর ওই গৃহবধূর হাত-পা বেঁধে চোখে-মুখে আঠা লাগিয়ে ধর্ষণ করে দুর্বৃত্তরা। এ সময় ঘরে থাকা নগদ দুই লাখ টাকা ও স্বর্ণালংকার লুট করে নিয়ে যায় তারা।

ওই নারীর ছেলে বলেন, বাড়ি থেকে টাকা ও স্বর্ণালংকার লুট হয়েছে। মায়ের চিকিৎসার জন্য তারা এখন খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে আছেন।

হাসপাতালের আবাসিক চিকিৎসা কর্মকর্তা (আরএমও) চিকিৎসক সুমন রায় বলেন, এক নারী ধর্ষণের শিকার হয়েছেন অভিযোগ করে তাকে আজ সকালে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। তার শরীরের বিভিন্ন জায়গায় আঘাতের চিহ্ন আছে। এই মুহূর্তে তার মুখ ও চোখ রক্ষার জন্য অস্ত্রোপচার করা হচ্ছে। তার স্বাস্থ্য পরীক্ষা করা হবে।

পাইকগাছা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) ওবাইদুর রহমান বলেন, কী কারণে, কারা ওই নারীকে ধর্ষণ করেছে, ব্যাপারটি এখন নিশ্চিত হওয়া যায়নি। এ ঘটনার তদন্ত চলছে। এখনো মামলা হয়নি।