ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়ার প্রধান নির্বাহীর পদত্যাগ

নিজস্ব প্রতিবেদক
  • Update Time : ০৭:১৪:২১ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ১৬ জুন ২০২০
  • / ১৩৬ Time View

পদত্যাগ করেছেন ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়ার প্রধান নির্বাহী কেভিন রবার্ট। তবে অজি গণমাধ্যমের দাবি পদত্যাগ নয় ছাঁটাই করা হয়েছে তকে। এদিকে শ্রীলঙ্কার এশিয়া কাপের ১৫তম আসর আয়োজনে বাঁধ সেধেছে ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ড বিসিসিআই। আর সুযোগ পেলে বিরাট কোহলিদের কোচ হওয়ার ইচ্ছে প্রকাশ করেছেন দেশটির সাবেক অধিনায়ক মোহাম্মদ আজহারউদ্দিন।

করোনার এই দুঃসময়ে যেন নাজুক অবস্থা ক্রিকেট বোর্ডগুলোর। নেই আয়, বিপরীতে খেলোয়াড়, কর্মকর্তা, স্টাফদের বেতন দিতে যেন নিঃস্ব অবস্থা তাদের। তাইতো দু একটি ব্যতিক্রম ছাড়া ব্যয় সংকোচন নীতিতেই হাঁটছে অধিকাংশ বোর্ড। যার শুরুটা ছিলো অস্ট্রেলিয়ার হাত ধরে।

গত এপ্রিল থেকে অজি হেড অফিসের ৮০ ভাগ কর্মীকে পঠানো হয়েছে বাধ্যতামূলক ছুটিতে। ছাঁটাইও হয়েছে অনেকেই। এবার সে তালিকায় যোগ হলো ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়ার প্রধান নির্বাহী কেভিন রবার্টসের নাম।

করোনাকালে বোর্ড পরিচালনায় অদক্ষতার পরিচয় দিয়ে সমালোচিত হয়েছেন রবার্টস। যার মূলে ছিলো কমনওয়েলথ ব্যাংক থেকে ৫০ মিলিয়ন ইউএস ডলার ঋণ নেয়া। তার ওপর ভারতের বিপক্ষে ঘরের মাঠে সিরিজের জন্য পার্থকে ভেন্যু না করায় তার ওপর চটেছিলো সবাই। তাইতো বোর্ডের সদস্যরা তাই তাকে সরিয়ে দেয়ার ব্যাপারে একমত হয়ে মিটিংয়ে বসেছিলেন। সেই মিটিং চলাকালেই পদত্যাগ করলেন রবার্টস। ২০১৮ সালে জেমস সাদারল‌্যান্ডের স্থলাভিষিক্ত হয়েছিলেন তিনি।

এদিকে শ্রীলঙ্কায় এশিয়াকাপের পরবর্তী আসর হলে তাতে অংশ নেবে না বলে জানিয়েছে ভারত, এমন খবরই প্রকাশ করেছে দেশটির গণমাধ্যমগুলো। রোটেশন অনুসারে এবারের এশিয়া কাপ পাকিস্তানে হওয়ার কথা থাকলেও এশিয়া কাপ নিয়ে পাকিস্তান আর শ্রীলঙ্কার মধ্যে একটা গোপন চুক্তি হয় যা সম্প্রতি আসে প্রকাশ্যে।

যেখানে লঙ্কান ক্রিকেট বোর্ডকে এবারের আয়োজন করার বিনিময়ে ২০২২ এশিয়াকাপের স্বাগতিক হতে চেয়েছিলো পাকিস্তান। শ্রীলঙ্কাও রাজি এই প্রস্তাবে। তবে বিষয়টা জানান পর ঘোর আপত্তি তুলেছে ভারত। তারা কোনোভাবেই পাকিস্তান আর শ্রীলঙ্কার এই অদল-বদল মেনে নিতে পারছে না। এ কারণে আনুষ্ঠানিকভাবেই তারা আপত্তি জানিয়েছে এসিসির কাছে। ফলে এবার নতুন জটিলতায় এবছরের এশিয়া কাপ।

এদিকে সুযোগ পেলে ভারতের কোচ হতে চান আজহারউদ্দিন। গালফ নিউজকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে এমনটাই জানিয়েছেন তিনি।

৯৯টেস্ট খেলা আজহার বলেন এখন-ও তার ভারতকে দেয়ার অনেক কিছুই বাকি। সেই উদ্যম থেকেই কাজ করতে চান কোহলি-রোহিতদের সঙ্গে। বর্তমানে হায়দ্রাবাদ ক্রিকেট অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি হিসেবে কাজ করলেও আপাতত ভারতীয় বোর্ড প্রধান হওয়ার কোন ইচ্ছে নেই বলেও জানান আজহারউদ্দিন।

পে অফ মকে নেতৃত্ব দেওয়ার চেয়ে এটি অনেক কঠিন।’

Tag :

Please Share This Post in Your Social Media

ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়ার প্রধান নির্বাহীর পদত্যাগ

Update Time : ০৭:১৪:২১ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ১৬ জুন ২০২০

পদত্যাগ করেছেন ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়ার প্রধান নির্বাহী কেভিন রবার্ট। তবে অজি গণমাধ্যমের দাবি পদত্যাগ নয় ছাঁটাই করা হয়েছে তকে। এদিকে শ্রীলঙ্কার এশিয়া কাপের ১৫তম আসর আয়োজনে বাঁধ সেধেছে ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ড বিসিসিআই। আর সুযোগ পেলে বিরাট কোহলিদের কোচ হওয়ার ইচ্ছে প্রকাশ করেছেন দেশটির সাবেক অধিনায়ক মোহাম্মদ আজহারউদ্দিন।

করোনার এই দুঃসময়ে যেন নাজুক অবস্থা ক্রিকেট বোর্ডগুলোর। নেই আয়, বিপরীতে খেলোয়াড়, কর্মকর্তা, স্টাফদের বেতন দিতে যেন নিঃস্ব অবস্থা তাদের। তাইতো দু একটি ব্যতিক্রম ছাড়া ব্যয় সংকোচন নীতিতেই হাঁটছে অধিকাংশ বোর্ড। যার শুরুটা ছিলো অস্ট্রেলিয়ার হাত ধরে।

গত এপ্রিল থেকে অজি হেড অফিসের ৮০ ভাগ কর্মীকে পঠানো হয়েছে বাধ্যতামূলক ছুটিতে। ছাঁটাইও হয়েছে অনেকেই। এবার সে তালিকায় যোগ হলো ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়ার প্রধান নির্বাহী কেভিন রবার্টসের নাম।

করোনাকালে বোর্ড পরিচালনায় অদক্ষতার পরিচয় দিয়ে সমালোচিত হয়েছেন রবার্টস। যার মূলে ছিলো কমনওয়েলথ ব্যাংক থেকে ৫০ মিলিয়ন ইউএস ডলার ঋণ নেয়া। তার ওপর ভারতের বিপক্ষে ঘরের মাঠে সিরিজের জন্য পার্থকে ভেন্যু না করায় তার ওপর চটেছিলো সবাই। তাইতো বোর্ডের সদস্যরা তাই তাকে সরিয়ে দেয়ার ব্যাপারে একমত হয়ে মিটিংয়ে বসেছিলেন। সেই মিটিং চলাকালেই পদত্যাগ করলেন রবার্টস। ২০১৮ সালে জেমস সাদারল‌্যান্ডের স্থলাভিষিক্ত হয়েছিলেন তিনি।

এদিকে শ্রীলঙ্কায় এশিয়াকাপের পরবর্তী আসর হলে তাতে অংশ নেবে না বলে জানিয়েছে ভারত, এমন খবরই প্রকাশ করেছে দেশটির গণমাধ্যমগুলো। রোটেশন অনুসারে এবারের এশিয়া কাপ পাকিস্তানে হওয়ার কথা থাকলেও এশিয়া কাপ নিয়ে পাকিস্তান আর শ্রীলঙ্কার মধ্যে একটা গোপন চুক্তি হয় যা সম্প্রতি আসে প্রকাশ্যে।

যেখানে লঙ্কান ক্রিকেট বোর্ডকে এবারের আয়োজন করার বিনিময়ে ২০২২ এশিয়াকাপের স্বাগতিক হতে চেয়েছিলো পাকিস্তান। শ্রীলঙ্কাও রাজি এই প্রস্তাবে। তবে বিষয়টা জানান পর ঘোর আপত্তি তুলেছে ভারত। তারা কোনোভাবেই পাকিস্তান আর শ্রীলঙ্কার এই অদল-বদল মেনে নিতে পারছে না। এ কারণে আনুষ্ঠানিকভাবেই তারা আপত্তি জানিয়েছে এসিসির কাছে। ফলে এবার নতুন জটিলতায় এবছরের এশিয়া কাপ।

এদিকে সুযোগ পেলে ভারতের কোচ হতে চান আজহারউদ্দিন। গালফ নিউজকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে এমনটাই জানিয়েছেন তিনি।

৯৯টেস্ট খেলা আজহার বলেন এখন-ও তার ভারতকে দেয়ার অনেক কিছুই বাকি। সেই উদ্যম থেকেই কাজ করতে চান কোহলি-রোহিতদের সঙ্গে। বর্তমানে হায়দ্রাবাদ ক্রিকেট অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি হিসেবে কাজ করলেও আপাতত ভারতীয় বোর্ড প্রধান হওয়ার কোন ইচ্ছে নেই বলেও জানান আজহারউদ্দিন।

পে অফ মকে নেতৃত্ব দেওয়ার চেয়ে এটি অনেক কঠিন।’