কুমিল্লার তিন উপজেলা পরিষদ নির্বাচন হোমনায় এমপির স্ত্রীতে আস্থা,দুই উপজেলায় নতুন মুখ

নিজস্ব প্রতিবেদক
  • Update Time : ১১:০০:৪৮ অপরাহ্ন, বুধবার, ৫ জুন ২০২৪
  • / 10

সোহাইবুল ইসলাম সোহাগ, কুমিল্লা

৬ষ্ঠ উপজেলা পরিষদ নির্বাচনের ৪র্থ দফা কুমিল্লার নাঙ্গলকোট, চৌদ্দগ্রাম, এবং হোমনা উপজেলা নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়েছে।

বুধবার সকাল ৮টা হতে ভোটগ্রহণ শুরু হয়ে শেষ হয় বিকেল ৪টা পর্যন্ত। নির্বাচনে টানা ২য় বারের মতো উপজেলা চেয়ারম্যান হিসাবে নির্বাচিত হয়েছেন কুমিল্লা-২ আসনের সংসদ সদস্য অধ্যক্ষ মজিদ আহমের স্ত্রী কুমিল্লা উত্তর জেলা আওয়ামীলীগের সদস্য রেহেনা বেগম। এদিকে প্রথমবার উপজেলা পরিষদে চেয়ারম্যান পদে নির্বাচন করে বাজিমাত করেন চৌদ্দগ্রাম উপজেলার আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক মো: রহমত উল্লাহ বাবু ও নাঙ্গলকোট উপজেলার আওয়ামীলীগের সদস্য নাজমুল হাসান বাছির ।

বুধবার (৫ জুন) রাতে ভোট গণনা শেষে রিটার্নিং কর্মকর্তা পঙ্কজ বড়ুয়া’র দেওয়া বেসরকারিভাবে ঘোষিত ফল থেকে এ তথ্য পাওয়া গেছে।

ঘোষিত ফলাফল থেকে জানা গেছে, হোমনা চেয়ারম্যান পদে রেহেনা বেগম আনারস প্রতীক নিয়ে ভোট ৪০ হাজার ২৭৭ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দী সিদ্দিকুর রহমান আবুল উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মোটরসাইকেল প্রতীক নিয়ে ভোট পেয়েছেন ১৫ হাজার ২৩০ ভোট। ভাইস চেয়ারম্যান পদে উপজেলার আসাদপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মকবুল পাঠান তালা প্রতীক নিয়ে ৩৯ হাজার ৩৯৮ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী মনিরুজ্জামান টিপু উপজেলা যুবলীগের সাবেক আহবায়ক টিয়া পাখি প্রতীক নিয়ে পেয়েছেন ১৫ হাজার ৯১৪ ভোট। মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে নাজমা আক্তার পুরো বিএনপির যুগ্ম আহবায়ক ফুটবল প্রতীক নিয়ে ভোট ২১ হাজার ৪৪ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী খন্দকার হালিমা বেগম জেলা আওয়ামী আইনজীবী লীগের সদস্য হাঁস প্রতীক নিয়ে পেয়েছেন ১৮ হাজার ১১৩।

চৌদ্দগ্রামে চেয়ারম্যান পদে মোঃ রহমত উল্লাহ বাবুল আনারস প্রতিক নিয়ে ১ লক্ষ ২৪ হাজার ৮৯৪ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী এ কে এম গোলাম ফারুক উপজেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক দোয়াত কলম প্রতীক নিয়ে পেয়েছেন ৫৯৭৭ ভোট । ভাইস চেয়ারম্যান পদে উপজেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি মোঃ ইসহাক খান বই প্রতীক নিয়ে ১ লক্ষ ১৯ হাজার ৭৮১ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন, তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী এ এস এম শাহিন মজুমদার স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে টিয়া পাখি প্রত্যেক নিয়ে পেয়েছেন ৮৪৩৯ ভোট। মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে উপজেলা মহিলা আওয়ামীলীগের সিনিয়র সভাপতি হাজেরা আক্তার ববি কলস প্রতীক নিয়ে ভোট পেয়ে এক লক্ষ ২৩ হাজার ৬৫০ ভোট নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী রহিমা আক্তার ফুটবল প্রতীক নিয়ে পেয়েছেন ৭৪৯৭ ভোট।

নাঙ্গলকোট উপজেলা চেয়ারম্যান পদে নাজমুল হাসান বাছির ভূঁইয়া উপজেলা আওয়ামী লীগের সদস্য দোয়াত কলম প্রতীক নিয়ে ৪৬ হাজার ৭৮৫ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন । তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী মোহাম্মদ মাজহারুল ইসলাম উপজেলা বিএনপির সদস্য কাপ-পিরিচ প্রতীক নিয়ে ভোট পেয়েছেন ৩৭ হাজার ৩১২ ভোট। ভাইস চেয়ারম্যান পদে মোঃ আব্দুর রাজ্জাক উপজেলা যুবলীগের সদস্য চশমা প্রতীক নিয়ে ৪৮ হাজার ৫২৪ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী মোহাম্মদ তৌহিদুর রহমান উপজেলা আওয়ামী লীগের সদস্য তালা প্রতিক নিয়ে ভোট পেয়েছেন ৪০ হাজার ৭১৯ ভোট। মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে তাহরিনা আক্তার স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে ফুটবল প্রতীক নিয়ে ৫৫ হাজার ৬৮৫ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী মোসা: কুলসুম আক্তার হাঁস প্রতীক নিয়ে পেয়েছেন ৩৫ হাজার ৩৮৭ ভোট।

Tag :

Please Share This Post in Your Social Media

কুমিল্লার তিন উপজেলা পরিষদ নির্বাচন হোমনায় এমপির স্ত্রীতে আস্থা,দুই উপজেলায় নতুন মুখ

Update Time : ১১:০০:৪৮ অপরাহ্ন, বুধবার, ৫ জুন ২০২৪

সোহাইবুল ইসলাম সোহাগ, কুমিল্লা

৬ষ্ঠ উপজেলা পরিষদ নির্বাচনের ৪র্থ দফা কুমিল্লার নাঙ্গলকোট, চৌদ্দগ্রাম, এবং হোমনা উপজেলা নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়েছে।

বুধবার সকাল ৮টা হতে ভোটগ্রহণ শুরু হয়ে শেষ হয় বিকেল ৪টা পর্যন্ত। নির্বাচনে টানা ২য় বারের মতো উপজেলা চেয়ারম্যান হিসাবে নির্বাচিত হয়েছেন কুমিল্লা-২ আসনের সংসদ সদস্য অধ্যক্ষ মজিদ আহমের স্ত্রী কুমিল্লা উত্তর জেলা আওয়ামীলীগের সদস্য রেহেনা বেগম। এদিকে প্রথমবার উপজেলা পরিষদে চেয়ারম্যান পদে নির্বাচন করে বাজিমাত করেন চৌদ্দগ্রাম উপজেলার আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক মো: রহমত উল্লাহ বাবু ও নাঙ্গলকোট উপজেলার আওয়ামীলীগের সদস্য নাজমুল হাসান বাছির ।

বুধবার (৫ জুন) রাতে ভোট গণনা শেষে রিটার্নিং কর্মকর্তা পঙ্কজ বড়ুয়া’র দেওয়া বেসরকারিভাবে ঘোষিত ফল থেকে এ তথ্য পাওয়া গেছে।

ঘোষিত ফলাফল থেকে জানা গেছে, হোমনা চেয়ারম্যান পদে রেহেনা বেগম আনারস প্রতীক নিয়ে ভোট ৪০ হাজার ২৭৭ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দী সিদ্দিকুর রহমান আবুল উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মোটরসাইকেল প্রতীক নিয়ে ভোট পেয়েছেন ১৫ হাজার ২৩০ ভোট। ভাইস চেয়ারম্যান পদে উপজেলার আসাদপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মকবুল পাঠান তালা প্রতীক নিয়ে ৩৯ হাজার ৩৯৮ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী মনিরুজ্জামান টিপু উপজেলা যুবলীগের সাবেক আহবায়ক টিয়া পাখি প্রতীক নিয়ে পেয়েছেন ১৫ হাজার ৯১৪ ভোট। মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে নাজমা আক্তার পুরো বিএনপির যুগ্ম আহবায়ক ফুটবল প্রতীক নিয়ে ভোট ২১ হাজার ৪৪ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী খন্দকার হালিমা বেগম জেলা আওয়ামী আইনজীবী লীগের সদস্য হাঁস প্রতীক নিয়ে পেয়েছেন ১৮ হাজার ১১৩।

চৌদ্দগ্রামে চেয়ারম্যান পদে মোঃ রহমত উল্লাহ বাবুল আনারস প্রতিক নিয়ে ১ লক্ষ ২৪ হাজার ৮৯৪ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী এ কে এম গোলাম ফারুক উপজেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক দোয়াত কলম প্রতীক নিয়ে পেয়েছেন ৫৯৭৭ ভোট । ভাইস চেয়ারম্যান পদে উপজেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি মোঃ ইসহাক খান বই প্রতীক নিয়ে ১ লক্ষ ১৯ হাজার ৭৮১ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন, তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী এ এস এম শাহিন মজুমদার স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে টিয়া পাখি প্রত্যেক নিয়ে পেয়েছেন ৮৪৩৯ ভোট। মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে উপজেলা মহিলা আওয়ামীলীগের সিনিয়র সভাপতি হাজেরা আক্তার ববি কলস প্রতীক নিয়ে ভোট পেয়ে এক লক্ষ ২৩ হাজার ৬৫০ ভোট নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী রহিমা আক্তার ফুটবল প্রতীক নিয়ে পেয়েছেন ৭৪৯৭ ভোট।

নাঙ্গলকোট উপজেলা চেয়ারম্যান পদে নাজমুল হাসান বাছির ভূঁইয়া উপজেলা আওয়ামী লীগের সদস্য দোয়াত কলম প্রতীক নিয়ে ৪৬ হাজার ৭৮৫ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন । তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী মোহাম্মদ মাজহারুল ইসলাম উপজেলা বিএনপির সদস্য কাপ-পিরিচ প্রতীক নিয়ে ভোট পেয়েছেন ৩৭ হাজার ৩১২ ভোট। ভাইস চেয়ারম্যান পদে মোঃ আব্দুর রাজ্জাক উপজেলা যুবলীগের সদস্য চশমা প্রতীক নিয়ে ৪৮ হাজার ৫২৪ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী মোহাম্মদ তৌহিদুর রহমান উপজেলা আওয়ামী লীগের সদস্য তালা প্রতিক নিয়ে ভোট পেয়েছেন ৪০ হাজার ৭১৯ ভোট। মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে তাহরিনা আক্তার স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে ফুটবল প্রতীক নিয়ে ৫৫ হাজার ৬৮৫ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী মোসা: কুলসুম আক্তার হাঁস প্রতীক নিয়ে পেয়েছেন ৩৫ হাজার ৩৮৭ ভোট।