কুমিল্লায় সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে ‘পানি ঘণ্টা’ চালু

নিজস্ব প্রতিবেদক
  • Update Time : ০৬:০৫:১১ অপরাহ্ন, রবিবার, ২৮ এপ্রিল ২০২৪
  • / ২২ Time View

কুমিল্লায় শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে ‘পানি ঘণ্টা’ চালু করা হয়েছে। রোববার জেলার সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে জেলা প্রশাসকের নির্দেশে এ পানি ঘণ্টা চালু করা হয়। এতে চলমান দাবদাহে শিক্ষার্থীরা বিপর্যস্ত অবস্থা থেকে রক্ষা পাবে। এদিকে, তীব্র লোডশেডিংয়ে অনেকটাই নাজেহাল শিক্ষার্থীরা।

জানা গেছে, চলমান তাপপ্রবাহে শিক্ষার্থীরা যাতে পানি খেতে ভুলে না যায় সেই লক্ষ্যে কুমিল্লা জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে জেলার সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে প্রতি ঘণ্টায় ‘পানি ঘণ্টা’ চালু ও পানি সরবরাহের জন্য নির্দেশনা দিয়ে চিঠি পাঠানো হয়। রোববার থেকে তা কার্যকরের নির্দেশনা দেয়া হয়।

জেলা প্রশাসক খন্দকার মু. মুশফিকুর রহমান স্বাক্ষরিত এ চিঠি প্রাথমিক ও জেলা শিক্ষা অফিসার এবং সব উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাদের মাধ্যমে সংশ্লিষ্ট শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে সরবরাহ করা হয়। এ ছাড়াও সব গণমাধ্যম কর্মীদের কাছে এ চিঠির কপি দেয়া হয়।

এ বিষয়ে জেলা প্রশাসক খন্দকার মু. মুশফিকুর রহমান বলেন, প্রচণ্ড তাপদাহে শিক্ষার্থীদের কিছুটা স্বস্তি দিতে আমরা নিজস্ব উদ্যাগে ব্যতিক্রমী এ পানি ঘণ্টা চালু করেছি। যতদিন দাবদাহ বেশি থাকবে, পানি ঘণ্টা ততদিন চালু থাকবে।

Tag :

Please Share This Post in Your Social Media

কুমিল্লায় সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে ‘পানি ঘণ্টা’ চালু

Update Time : ০৬:০৫:১১ অপরাহ্ন, রবিবার, ২৮ এপ্রিল ২০২৪

কুমিল্লায় শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে ‘পানি ঘণ্টা’ চালু করা হয়েছে। রোববার জেলার সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে জেলা প্রশাসকের নির্দেশে এ পানি ঘণ্টা চালু করা হয়। এতে চলমান দাবদাহে শিক্ষার্থীরা বিপর্যস্ত অবস্থা থেকে রক্ষা পাবে। এদিকে, তীব্র লোডশেডিংয়ে অনেকটাই নাজেহাল শিক্ষার্থীরা।

জানা গেছে, চলমান তাপপ্রবাহে শিক্ষার্থীরা যাতে পানি খেতে ভুলে না যায় সেই লক্ষ্যে কুমিল্লা জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে জেলার সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে প্রতি ঘণ্টায় ‘পানি ঘণ্টা’ চালু ও পানি সরবরাহের জন্য নির্দেশনা দিয়ে চিঠি পাঠানো হয়। রোববার থেকে তা কার্যকরের নির্দেশনা দেয়া হয়।

জেলা প্রশাসক খন্দকার মু. মুশফিকুর রহমান স্বাক্ষরিত এ চিঠি প্রাথমিক ও জেলা শিক্ষা অফিসার এবং সব উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাদের মাধ্যমে সংশ্লিষ্ট শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে সরবরাহ করা হয়। এ ছাড়াও সব গণমাধ্যম কর্মীদের কাছে এ চিঠির কপি দেয়া হয়।

এ বিষয়ে জেলা প্রশাসক খন্দকার মু. মুশফিকুর রহমান বলেন, প্রচণ্ড তাপদাহে শিক্ষার্থীদের কিছুটা স্বস্তি দিতে আমরা নিজস্ব উদ্যাগে ব্যতিক্রমী এ পানি ঘণ্টা চালু করেছি। যতদিন দাবদাহ বেশি থাকবে, পানি ঘণ্টা ততদিন চালু থাকবে।