এবার পর্যটকদের জন্য খুলে দেওয়া হলো গোয়া সমুদ্রসৈকত

নিজস্ব প্রতিবেদক
  • Update Time : ১০:৩২:২০ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২ জুলাই ২০২০
  • / ১৫০ Time View

করোনা শেষে নড়েচড়ে বসছে ভারতের পর্যটন দফতর। এবার পর্যটকদের জন্য খুলে দেওয়া হলো গোয়া সমুদ্রসৈকত। ০১ জুলাই রাজ্যের পর্যটনমন্ত্রী মনোহর অজগাঁওকর এ ঘোষণা দেন। তিনি জানান, বৃহস্পতিবার থেকেই গোয়ায় ঘুরতে যেতে পারবেন ভ্রমণপিপাসুরা। তবে মেনে চলতে হবে কিছু শর্ত।

সংবাদ সংস্থা এএনআইকে তিনি জানান, ২৫০টি হোটেলকে কাজ শুরু করার অনুমতি দেওয়া হয়েছে। এ সৈকত শহরে এসে পর্যটকদের থাকতে কোনো সমস্যা হবে না। তবে কোনোভাবেই যেন সংক্রমণ না ছড়ায়, সে দিকেও কঠিন নজরদারি রাখা হবে। বিষয়টি নিশ্চিত করতে বিশেষ গুরুত্ব দিচ্ছে স্থানীয় প্রশাসন।

সূত্র জানায়, গোয়া সৈকত শহরে ভ্রমণে গেলে পর্যটককে দেখাতে হবে করোনা নেগেটিভ সার্টিফিকেট। এটি সঙ্গে করে নিয়ে যেতে পারলে কোনো ঝামেলাই থাকবে না। না হলে ৪৮ ঘণ্টার মধ্যে তা জমা দিতে হবে প্রশাসনের কাছে। একান্তই যদি কেউ তা সংগ্রহ করতে না পারেন। তাহলে গোয়াতেই বাধ্যতামূলকভাবে পরীক্ষা করানো হবে।

 

পর্যটকদের গোয়ায় ঘোরাফেরার সময়ও কিছু বিষয় মাথায় রাখতে হবে। তাছাড়া ভ্রমণপিপাসুরা গোয়া আসতে চাইলে আগে থেকেই হোটেল বুক করে রাখতে হবে। তবে গোয়ায় পৌঁছানোর পর করোনা শনাক্ত হলে তাকে নিজ বাসস্থানে ফিরে যেতে বলা হবে। কিন্তু তিনি চাইলে গোয়ায় থেকেও চিকিৎসা নিতে পারবেন।

মন্ত্রী মনে করেন, করোনা আতঙ্কে এখনো ভীত প্রায় সারা বিশ্ব। ভারতেও দাপট দেখিয়ে চলছে ভাইরাসটি। তবুও রাজ্যের মন্ত্রিসভার বৈঠকেই পর্যটন স্পট খুলে দেওয়ার সিদ্ধান্ত হয়। তবে দেশের সরকারের অনুমতি ছাড়া কোনো হোটেল বা আবাসন খোলা যাবে না। সেই সঙ্গে থাকতে হবে করোনা নেগেটিভ সনদ।

Tag :

Please Share This Post in Your Social Media

এবার পর্যটকদের জন্য খুলে দেওয়া হলো গোয়া সমুদ্রসৈকত

Update Time : ১০:৩২:২০ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২ জুলাই ২০২০

করোনা শেষে নড়েচড়ে বসছে ভারতের পর্যটন দফতর। এবার পর্যটকদের জন্য খুলে দেওয়া হলো গোয়া সমুদ্রসৈকত। ০১ জুলাই রাজ্যের পর্যটনমন্ত্রী মনোহর অজগাঁওকর এ ঘোষণা দেন। তিনি জানান, বৃহস্পতিবার থেকেই গোয়ায় ঘুরতে যেতে পারবেন ভ্রমণপিপাসুরা। তবে মেনে চলতে হবে কিছু শর্ত।

সংবাদ সংস্থা এএনআইকে তিনি জানান, ২৫০টি হোটেলকে কাজ শুরু করার অনুমতি দেওয়া হয়েছে। এ সৈকত শহরে এসে পর্যটকদের থাকতে কোনো সমস্যা হবে না। তবে কোনোভাবেই যেন সংক্রমণ না ছড়ায়, সে দিকেও কঠিন নজরদারি রাখা হবে। বিষয়টি নিশ্চিত করতে বিশেষ গুরুত্ব দিচ্ছে স্থানীয় প্রশাসন।

সূত্র জানায়, গোয়া সৈকত শহরে ভ্রমণে গেলে পর্যটককে দেখাতে হবে করোনা নেগেটিভ সার্টিফিকেট। এটি সঙ্গে করে নিয়ে যেতে পারলে কোনো ঝামেলাই থাকবে না। না হলে ৪৮ ঘণ্টার মধ্যে তা জমা দিতে হবে প্রশাসনের কাছে। একান্তই যদি কেউ তা সংগ্রহ করতে না পারেন। তাহলে গোয়াতেই বাধ্যতামূলকভাবে পরীক্ষা করানো হবে।

 

পর্যটকদের গোয়ায় ঘোরাফেরার সময়ও কিছু বিষয় মাথায় রাখতে হবে। তাছাড়া ভ্রমণপিপাসুরা গোয়া আসতে চাইলে আগে থেকেই হোটেল বুক করে রাখতে হবে। তবে গোয়ায় পৌঁছানোর পর করোনা শনাক্ত হলে তাকে নিজ বাসস্থানে ফিরে যেতে বলা হবে। কিন্তু তিনি চাইলে গোয়ায় থেকেও চিকিৎসা নিতে পারবেন।

মন্ত্রী মনে করেন, করোনা আতঙ্কে এখনো ভীত প্রায় সারা বিশ্ব। ভারতেও দাপট দেখিয়ে চলছে ভাইরাসটি। তবুও রাজ্যের মন্ত্রিসভার বৈঠকেই পর্যটন স্পট খুলে দেওয়ার সিদ্ধান্ত হয়। তবে দেশের সরকারের অনুমতি ছাড়া কোনো হোটেল বা আবাসন খোলা যাবে না। সেই সঙ্গে থাকতে হবে করোনা নেগেটিভ সনদ।