একটি দুর্বল ‘পিলার’ পুঁজিবাজার : ড. সালেহউদ্দিন আহমেদ

  • Update Time : ০৪:২০:৫৩ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১৩ জুন ২০২৪
  • / 26

দেশের স্বাধীনতার এত বছর পরে শুধু একটি পতাকা ও জাতীয় সংগীত পেয়েছি আমরা। কারণ এর ভেতরের অন্যান্য পিলারগুলো খুবই দুর্বল। বাংলাদেশের ‘স্টক মার্কেট’ নামের পিলারটিও খুব দুর্বল।

বৃহস্পতিবার (১৩ জুন) ইকোনমিক রিপোর্টাস ফোরাম (ইআরএফ) আয়োজিত ‘জাতীয় বাজেট পরবর্তী’ এক আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

ড. সালেহউদ্দিন আহমেদ বলেন, পার্শ্ববর্তী দেশের পুঁজিবাজারের সেনসেক্স বেড়ে অনন্য উচ্চতায় উঠেছে। আর আমাদের দেশের পুঁজিবাজার এখনো দূর্বল অবস্থায় রয়েছে।

সাবেক এ গভর্নর বলেন, দেশে প্রত্যক্ষ বিদেশি বিনিয়োগ (এফডিআই) আসছে না। দেশের মানুষেরাই দেশে বিনিয়োগ করছে না, তারা বিদেশে টাকা পাচার করছে। সার্বিকভাবে নিয়ন্ত্রণকারী সংস্থাগুলোর ব্যাপক সমস্যা রয়েছে।

এদিকে আগামী ২০২৪-২৫ অর্থবছরের জন্য প্রস্তাবিত বাজেটের আকার ধরা হয়েছে সাত লাখ ৯৭ হাজার কোটি টাকা। এবার বাজেটে ঘাটতির পরিমাণ কমছে। চলতি অর্থবছরের প্রস্তাবিত বাজেটের তুলনায় আগামী অর্থবছরের বাজেটে ঘাটতি কম ধরা হয়েছে পাঁচ হাজার ৭৮৫ কোটি টাকা। অনুদান ছাড়া বাজেট ঘাটতি ধরা হয়েছে দুই লাখ ৫৬ হাজার কোটি টাকা। তবে, অনুদানসহ সামগ্রিক ঘাটতি দাঁড়াবে দুই লাখ ৫১ হাজার ৬০০ কোটি টাকা। অর্থাৎ আগামী অর্থবছর চার হাজার ৪০০ কোটি টাকা অনুদান পাওয়ার লক্ষ্যমাত্রা ধরা হয়েছে।

ঘাটতি মেটাতে বৈদেশিক ঋণের লক্ষ্যমাত্রা ধরা হয়েছে এক লাখ ২৭ হাজার ২০০ কোটি টাকা। বৈদেশি ঋণ পরিশোধ করা হবে ৩৬ হাজার ৫০০ কোটি টাকা। এতে নিট বৈদেশিক ঋণ দাঁড়াবে ৯০ হাজার ৭০০ কোটি টাকা। এ ছাড়া অভ্যন্তরীণ খাত থেকে ঋণ নেওয়া হবে এক লাখ ৬০ হাজার কোটি টাকা। এর মধ্যে ব্যাংক ব্যবস্থা থেকে নেওয়া হবে এক লাখ ৩৭ হাজার ৫০০ কোটি টাকা। যার ৭২ হাজার ৬৮২ কোটি টাকা দীর্ঘমেয়াদি ঋণ এবং ৬৪ হাজার ৮১৮ কোটি টাকা স্বল্পমেয়াদি। ব্যাংক-বহির্ভূত ঋণ নেওয়া হবে ২৩ হাজার ৪০০ কোটি টাকা। সঞ্চয়পত্র বিক্রির লক্ষ্যমাত্রা ধরা হয়েছে ১৫ হাজার ৪০০ কোটি টাকা।

এদিন আলোচনা সভায় মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন সিপিডির নির্বাহী পরিচালক ড. ফাহমিদা খাতুন, সভাপতিত্ব করেন ইআরএফ প্রেসিডেন্ট মোহাম্মদ রেফায়েত উল্লাহ মৃধা এবং সঞ্চালনা করেন ইআরএফ এক্সিকিউটিভ মেম্বার সাইফুল ইসলাম।

Tag :

Please Share This Post in Your Social Media

একটি দুর্বল ‘পিলার’ পুঁজিবাজার : ড. সালেহউদ্দিন আহমেদ

Update Time : ০৪:২০:৫৩ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১৩ জুন ২০২৪

দেশের স্বাধীনতার এত বছর পরে শুধু একটি পতাকা ও জাতীয় সংগীত পেয়েছি আমরা। কারণ এর ভেতরের অন্যান্য পিলারগুলো খুবই দুর্বল। বাংলাদেশের ‘স্টক মার্কেট’ নামের পিলারটিও খুব দুর্বল।

বৃহস্পতিবার (১৩ জুন) ইকোনমিক রিপোর্টাস ফোরাম (ইআরএফ) আয়োজিত ‘জাতীয় বাজেট পরবর্তী’ এক আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

ড. সালেহউদ্দিন আহমেদ বলেন, পার্শ্ববর্তী দেশের পুঁজিবাজারের সেনসেক্স বেড়ে অনন্য উচ্চতায় উঠেছে। আর আমাদের দেশের পুঁজিবাজার এখনো দূর্বল অবস্থায় রয়েছে।

সাবেক এ গভর্নর বলেন, দেশে প্রত্যক্ষ বিদেশি বিনিয়োগ (এফডিআই) আসছে না। দেশের মানুষেরাই দেশে বিনিয়োগ করছে না, তারা বিদেশে টাকা পাচার করছে। সার্বিকভাবে নিয়ন্ত্রণকারী সংস্থাগুলোর ব্যাপক সমস্যা রয়েছে।

এদিকে আগামী ২০২৪-২৫ অর্থবছরের জন্য প্রস্তাবিত বাজেটের আকার ধরা হয়েছে সাত লাখ ৯৭ হাজার কোটি টাকা। এবার বাজেটে ঘাটতির পরিমাণ কমছে। চলতি অর্থবছরের প্রস্তাবিত বাজেটের তুলনায় আগামী অর্থবছরের বাজেটে ঘাটতি কম ধরা হয়েছে পাঁচ হাজার ৭৮৫ কোটি টাকা। অনুদান ছাড়া বাজেট ঘাটতি ধরা হয়েছে দুই লাখ ৫৬ হাজার কোটি টাকা। তবে, অনুদানসহ সামগ্রিক ঘাটতি দাঁড়াবে দুই লাখ ৫১ হাজার ৬০০ কোটি টাকা। অর্থাৎ আগামী অর্থবছর চার হাজার ৪০০ কোটি টাকা অনুদান পাওয়ার লক্ষ্যমাত্রা ধরা হয়েছে।

ঘাটতি মেটাতে বৈদেশিক ঋণের লক্ষ্যমাত্রা ধরা হয়েছে এক লাখ ২৭ হাজার ২০০ কোটি টাকা। বৈদেশি ঋণ পরিশোধ করা হবে ৩৬ হাজার ৫০০ কোটি টাকা। এতে নিট বৈদেশিক ঋণ দাঁড়াবে ৯০ হাজার ৭০০ কোটি টাকা। এ ছাড়া অভ্যন্তরীণ খাত থেকে ঋণ নেওয়া হবে এক লাখ ৬০ হাজার কোটি টাকা। এর মধ্যে ব্যাংক ব্যবস্থা থেকে নেওয়া হবে এক লাখ ৩৭ হাজার ৫০০ কোটি টাকা। যার ৭২ হাজার ৬৮২ কোটি টাকা দীর্ঘমেয়াদি ঋণ এবং ৬৪ হাজার ৮১৮ কোটি টাকা স্বল্পমেয়াদি। ব্যাংক-বহির্ভূত ঋণ নেওয়া হবে ২৩ হাজার ৪০০ কোটি টাকা। সঞ্চয়পত্র বিক্রির লক্ষ্যমাত্রা ধরা হয়েছে ১৫ হাজার ৪০০ কোটি টাকা।

এদিন আলোচনা সভায় মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন সিপিডির নির্বাহী পরিচালক ড. ফাহমিদা খাতুন, সভাপতিত্ব করেন ইআরএফ প্রেসিডেন্ট মোহাম্মদ রেফায়েত উল্লাহ মৃধা এবং সঞ্চালনা করেন ইআরএফ এক্সিকিউটিভ মেম্বার সাইফুল ইসলাম।