একক সংখ্যাগরিষ্ঠতা হারাচ্ছেন মোদি?

নিজস্ব প্রতিবেদক
  • Update Time : ০৪:৪৩:০৭ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ৪ জুন ২০২৪
  • / 18

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

চলতি বছরের এপ্রিল থেকে জুন পর্যন্ত সাত দফায় ভোটগ্রহণের পর ভারতের লোকসভা নির্বাচনের ফল প্রকাশ হচ্ছে আজ মঙ্গলবার (৪ জুন)। যদিও শেষ দফার ভোট গ্রহণের দিন বুথফেরত জরিপ সংস্থাগুলো পূর্বাভাস জানিয়েছিল যে, এবারও বিপুল ভোটে বিজয় পাচ্ছে ক্ষমতাসীন বিজেপি ও তার নেতৃত্বাধীন জোট এনডিএ। কিন্তু প্রাথমিক ফল ঘোষণা শুরু হতেই সমস্ত বুথফেরত জরিপের ভবিষ্যদ্বাণী উল্টে দিচ্ছে বিরোধী জোট ইন্ডিয়া।

এদিন সকাল ৮টা থেকে শুরু হয় ভোট গণনা। দুপুর ২টা ৩৫ মিনিট (বাংলাদেশ সময়) পর্যন্ত ভোট গণনায় এগিয়ে আছে ক্ষমতাসীন বিজেপির জোট এনডিএ বা ন্যাশনাল ডেমোক্রেটিক অ্যালায়েন্স, তারা এগিয়ে রয়েছে ২৮৯টি আসনে। বিপরীতে প্রধান বিরোধী দল কংগ্রেসের নেতৃত্বে ইন্ডিয়া জোট বেশ খানিকটা পিছিয়ে রয়েছে, তারা এগিয়ে রয়েছে ২৩৫টি আসনে।

তবে প্রশ্ন হচ্ছে এককভাবে সংখ্যাগরিষ্ঠতা হারাচ্ছে ক্ষমতাসীন বিজেপি? এখনও পর্যন্ত নরেন্দ্র মোদির বিজেপি ২৩৩টি আসনে এগিয়ে রয়েছে। যেখানে ২০১৯ সালের লোকসভার নির্বাচনে বিজেপি পেয়েছি ৩০৩টি আসন। আর বিজেপির জোট এনডিএ পেয়েছি ৩৫৩টি আসন।

দ্যা কুইন্ট ওয়ার্ল্ড এর আপডেটের তথ্য অনুযায়ী, বিজেপি ২৩৩টি আসনে এগিয়ে রয়েছে, জাতীয় কংগ্রেস ৯৭টিতে, সমাজবাদী দল (অখিলেশ যাদব) ৩৮টিতে, তৃণমূল কংগ্রেস ৩১টি আসনে এগিয়ে রয়েছে। এছাড়া বাকি আসনগুলোতে স্থানীয় দলগুলো এগিয়ে রয়েছে।

এদিকে ভারতের ক্ষমতাসীন এই দলটি এবারের নির্বাচনে সংখ্যাগরিষ্ঠতা থেকে অনেক দূরে বলে জানিয়েছে সংবাদমাধ্যম বিবিসি। মূলত প্রাথমিক ভোট গণনায় মোদির ভূমিধস জয়ের আভাস মেলেনি। যদিও ভারতীয় সংবাদমাধ্যমগুলোর তথ্য অনুযায়ী, বিজেপি নেতৃত্বাধীন এনডিএ জোট কম-বেশি ২৯০টি আসনে এগিয়ে রয়েছে।

বিবিসি বলছে, নরেন্দ্র মোদি যখন ‘আব কি বার, চারশ পার’ (এবারে চারশ’ ছাড়িয়ে যাব) স্লোগান দিয়ে নির্বাচনের প্রচার শুরু করেছিলেন, তখন তিনি তার বিজেপি নেতৃত্বাধীন এনডিএ জোটের জন্য ৪০০ টিরও বেশি আসনে জয়ী হওয়ার লক্ষ্য রেখেছিলেন।

সবচেয়ে আশাবাদী বুথ ফেরত জরিপও পূর্বাভাস দিয়েছিল, তার জোট ৪০০ আসনে জয়ী হবে। যাইহোক, প্রাথমিক ভোট গণনা থেকে ধারণা করা হচ্ছে, নির্বাচনে বিরোধী মধ্য বামপন্থি ইন্ডিয়া জোটের সাথে হাড্ডাহাড্ডি লড়াই হতে পারে।

অবশ্য বিজেপি কখনোই ৪০০ আসন পাবে না বলে দৃঢ় বিশ্বাস ছিল কংগ্রেসের। যদিও চার দশক আগে তারাই ৪০০ আসন পারের লক্ষ্য পূরণ করতে সফল হয়েছিল। ১৯৮৪ সালের ৩১ অক্টোবর নিজের দেহরক্ষীদের হাতে খুন হন সাবেক প্রধানমন্ত্রী ইন্দিরা গান্ধী। এরপর সেই বছরই অনুষ্ঠিত লোকসভা নির্বাচনে ৫৪১টির মধ্যে ৪১৪টি আসনে জয়ী হয়ে ক্ষমতায় আসীন হন ইন্দিরার ছেলে রাজীব গান্ধী।

Tag :

Please Share This Post in Your Social Media

একক সংখ্যাগরিষ্ঠতা হারাচ্ছেন মোদি?

Update Time : ০৪:৪৩:০৭ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ৪ জুন ২০২৪

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

চলতি বছরের এপ্রিল থেকে জুন পর্যন্ত সাত দফায় ভোটগ্রহণের পর ভারতের লোকসভা নির্বাচনের ফল প্রকাশ হচ্ছে আজ মঙ্গলবার (৪ জুন)। যদিও শেষ দফার ভোট গ্রহণের দিন বুথফেরত জরিপ সংস্থাগুলো পূর্বাভাস জানিয়েছিল যে, এবারও বিপুল ভোটে বিজয় পাচ্ছে ক্ষমতাসীন বিজেপি ও তার নেতৃত্বাধীন জোট এনডিএ। কিন্তু প্রাথমিক ফল ঘোষণা শুরু হতেই সমস্ত বুথফেরত জরিপের ভবিষ্যদ্বাণী উল্টে দিচ্ছে বিরোধী জোট ইন্ডিয়া।

এদিন সকাল ৮টা থেকে শুরু হয় ভোট গণনা। দুপুর ২টা ৩৫ মিনিট (বাংলাদেশ সময়) পর্যন্ত ভোট গণনায় এগিয়ে আছে ক্ষমতাসীন বিজেপির জোট এনডিএ বা ন্যাশনাল ডেমোক্রেটিক অ্যালায়েন্স, তারা এগিয়ে রয়েছে ২৮৯টি আসনে। বিপরীতে প্রধান বিরোধী দল কংগ্রেসের নেতৃত্বে ইন্ডিয়া জোট বেশ খানিকটা পিছিয়ে রয়েছে, তারা এগিয়ে রয়েছে ২৩৫টি আসনে।

তবে প্রশ্ন হচ্ছে এককভাবে সংখ্যাগরিষ্ঠতা হারাচ্ছে ক্ষমতাসীন বিজেপি? এখনও পর্যন্ত নরেন্দ্র মোদির বিজেপি ২৩৩টি আসনে এগিয়ে রয়েছে। যেখানে ২০১৯ সালের লোকসভার নির্বাচনে বিজেপি পেয়েছি ৩০৩টি আসন। আর বিজেপির জোট এনডিএ পেয়েছি ৩৫৩টি আসন।

দ্যা কুইন্ট ওয়ার্ল্ড এর আপডেটের তথ্য অনুযায়ী, বিজেপি ২৩৩টি আসনে এগিয়ে রয়েছে, জাতীয় কংগ্রেস ৯৭টিতে, সমাজবাদী দল (অখিলেশ যাদব) ৩৮টিতে, তৃণমূল কংগ্রেস ৩১টি আসনে এগিয়ে রয়েছে। এছাড়া বাকি আসনগুলোতে স্থানীয় দলগুলো এগিয়ে রয়েছে।

এদিকে ভারতের ক্ষমতাসীন এই দলটি এবারের নির্বাচনে সংখ্যাগরিষ্ঠতা থেকে অনেক দূরে বলে জানিয়েছে সংবাদমাধ্যম বিবিসি। মূলত প্রাথমিক ভোট গণনায় মোদির ভূমিধস জয়ের আভাস মেলেনি। যদিও ভারতীয় সংবাদমাধ্যমগুলোর তথ্য অনুযায়ী, বিজেপি নেতৃত্বাধীন এনডিএ জোট কম-বেশি ২৯০টি আসনে এগিয়ে রয়েছে।

বিবিসি বলছে, নরেন্দ্র মোদি যখন ‘আব কি বার, চারশ পার’ (এবারে চারশ’ ছাড়িয়ে যাব) স্লোগান দিয়ে নির্বাচনের প্রচার শুরু করেছিলেন, তখন তিনি তার বিজেপি নেতৃত্বাধীন এনডিএ জোটের জন্য ৪০০ টিরও বেশি আসনে জয়ী হওয়ার লক্ষ্য রেখেছিলেন।

সবচেয়ে আশাবাদী বুথ ফেরত জরিপও পূর্বাভাস দিয়েছিল, তার জোট ৪০০ আসনে জয়ী হবে। যাইহোক, প্রাথমিক ভোট গণনা থেকে ধারণা করা হচ্ছে, নির্বাচনে বিরোধী মধ্য বামপন্থি ইন্ডিয়া জোটের সাথে হাড্ডাহাড্ডি লড়াই হতে পারে।

অবশ্য বিজেপি কখনোই ৪০০ আসন পাবে না বলে দৃঢ় বিশ্বাস ছিল কংগ্রেসের। যদিও চার দশক আগে তারাই ৪০০ আসন পারের লক্ষ্য পূরণ করতে সফল হয়েছিল। ১৯৮৪ সালের ৩১ অক্টোবর নিজের দেহরক্ষীদের হাতে খুন হন সাবেক প্রধানমন্ত্রী ইন্দিরা গান্ধী। এরপর সেই বছরই অনুষ্ঠিত লোকসভা নির্বাচনে ৫৪১টির মধ্যে ৪১৪টি আসনে জয়ী হয়ে ক্ষমতায় আসীন হন ইন্দিরার ছেলে রাজীব গান্ধী।