উপকূলীয় এলাকায় অধিক বৃক্ষরোপণে ঘূর্ণিঝড়ের ক্ষতি অনেক হ্রাস পাবে: ড. সাইয়্যিদ সাইফুদ্দীন আহমদ মাইজভাণ্ডারী

নিজস্ব প্রতিবেদক
  • Update Time : ১২:০৬:০৮ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ৩১ মে ২০২৪
  • / 18

আল-আমিন ভূঁইয়া:

মইনীয়া যুব ফোরামের প্রতিষ্ঠাতা ড. সাইয়্যিদ সাইফুদ্দীন আহমদ আল হাসানী মাইজভাণ্ডারী বলেছেন,”একটি রাষ্ট্রের মোট ভূখণ্ডের অন্তত ২৫% বনভূমি থাকা প্রয়োজন। কিন্তু সরকারি হিসেবে, বাংলাদেশে তা ১৭.৫%। আন্তর্জাতিক পরিবেশ বিষয়ক সংস্থার মতে, তা আরো কম। বঙ্গোপসাগরের তীরবর্তী হওয়ায়, বাংলাদেশ প্রায়শই শক্তিশালী ঘূর্ণিঝড়ের শিকার হয়। জলবায়ু পরিবর্তনের কারণে এ প্রভাব অনেক বেশি বাড়ছে। জার্মানওয়াচের মতে জলবায়ু ঝুঁকিতে বাংলাদেশ ৭ম। বৈশ্বিক উষ্ণতা রোধে, বাংলাদেশ জলবায়ু কূটনীতিকে গুরুত্ব দিয়েছে। এ ক্ষেত্রে ‘লস অ্যান্ড ড্যামেজ ফান্ড’ ও ‘জিসিএফ’ থেকে আমাদের ন্যায্য অধিকার আদায় এবং শিল্পোন্নত দেশগুলোকে প্যারিস জলবায়ু চুক্তির শর্তগুলো পালনে চাপ বাড়াতে ক্ষতিগ্রস্ত দেশগুলো চেষ্টা করছে। তবে, আমাদের নিজেদের করণীয় কী, তাও ভাবতে হবে। সুনাগরিক হিসেবে রাষ্ট্রের প্রতি আমাদের কিছু কর্তব্য রয়েছে। উপকূলীয় এলাকায় অধিক বৃক্ষরোপণের মাধ্যমে উপকূলীয় সবুজ বেষ্টনী গড়ে তুলতে হবে। আমরা সিডর, আয়লাসহ বিভিন্ন ভয়াবহ ঘূর্ণিঝড়ে দেখেছি, সুন্দরবন কীভাবে আমাদের জন্য দুর্গ হিসেবে কাজ করেছে। তাই বৃক্ষরোপণের পাশাপাশি বৃক্ষ নিধন প্রতিরোধ করতে হবে। বনদস্যুদেরকে সকলে মিলে প্রতিহত করতে হবে। আসুন আমরা প্রত্যেকে শপথ নেই যে, প্রতিবছর অন্তত ৫টি করে গাছের চারা রোপণ ও বিতরণ করবো। মইনীয়া যুব ফোরাম দেশজুড়ে বৃক্ষরোপণ কর্মসূচি পালন করে আসছে। এছাড়াও আমরা প্লাস্টিক দূষণ রোধ ও পরিবেশবান্ধব কার্যক্রমকে উৎসাহিত করছি। আমরা মাইজভাণ্ডারী অনুসারীদের মাধ্যমে পরিবেশ সুরক্ষায় সমাজে একটি জাগরণ সৃষ্টি করতে চাই।”

৩০শে মে  চাঁদপুর জেলার মতলব উত্তরের ঠেটালিয়ায় “জলবায়ু পরিবর্তনের প্রভাব মোকাবেলায় বৃক্ষরোপণ কর্মসুচীতে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন।

বিশেষ অতিথি ছিলেন বাংলাদেশ সুপ্রিম পার্টির ভাইস চেয়ারম্যান মাওলানা রুহুল আমিন ভূঁইয়া, মইনীয়া যুব ফোরামের সাধারণ সম্পাদক শাহ মোহাম্মদ আসলাম হোসেন, সাংগঠনিক সম্পাদক শাহ মোহাম্মদ কামরুজ্জামান হারুন, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক হাবিবুর রহমান পায়েল, ঢাকা মহানগর দক্ষিণ সাধারণ সম্পাদক জাহিদ হোসেন শ্যামল, ঢাকা মহানগর উত্তর সাধারণ সম্পাদক সোহেল মাহমুদ ভূঁইয়া, চাঁদপুর জেলার সাধারণ সম্পাদক মাকসুদুর রহমান,শাহ মোঃ লিয়াকত হোসেন,শাহ মোঃ আলমগীর হোসেন,শাহ মোঃ আব্দুর রশিদ মিয়াজী।

সভাপতিত্ব করেন মতলব উত্তর উপজেলা শাখার সভাপতি নজরুল ইসলাম মামুন। সঞ্চালনায় সাধারণ সম্পাদক মুক্তার হোসেন মেনন।

পরে গাছের চারা রোপণ ও বিতরণ করেন ড. সাইয়্যিদ সাইফুদ্দীন আহমদ আল হাসানী মাইজভাণ্ডারী।

Tag :

Please Share This Post in Your Social Media

উপকূলীয় এলাকায় অধিক বৃক্ষরোপণে ঘূর্ণিঝড়ের ক্ষতি অনেক হ্রাস পাবে: ড. সাইয়্যিদ সাইফুদ্দীন আহমদ মাইজভাণ্ডারী

Update Time : ১২:০৬:০৮ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ৩১ মে ২০২৪

আল-আমিন ভূঁইয়া:

মইনীয়া যুব ফোরামের প্রতিষ্ঠাতা ড. সাইয়্যিদ সাইফুদ্দীন আহমদ আল হাসানী মাইজভাণ্ডারী বলেছেন,”একটি রাষ্ট্রের মোট ভূখণ্ডের অন্তত ২৫% বনভূমি থাকা প্রয়োজন। কিন্তু সরকারি হিসেবে, বাংলাদেশে তা ১৭.৫%। আন্তর্জাতিক পরিবেশ বিষয়ক সংস্থার মতে, তা আরো কম। বঙ্গোপসাগরের তীরবর্তী হওয়ায়, বাংলাদেশ প্রায়শই শক্তিশালী ঘূর্ণিঝড়ের শিকার হয়। জলবায়ু পরিবর্তনের কারণে এ প্রভাব অনেক বেশি বাড়ছে। জার্মানওয়াচের মতে জলবায়ু ঝুঁকিতে বাংলাদেশ ৭ম। বৈশ্বিক উষ্ণতা রোধে, বাংলাদেশ জলবায়ু কূটনীতিকে গুরুত্ব দিয়েছে। এ ক্ষেত্রে ‘লস অ্যান্ড ড্যামেজ ফান্ড’ ও ‘জিসিএফ’ থেকে আমাদের ন্যায্য অধিকার আদায় এবং শিল্পোন্নত দেশগুলোকে প্যারিস জলবায়ু চুক্তির শর্তগুলো পালনে চাপ বাড়াতে ক্ষতিগ্রস্ত দেশগুলো চেষ্টা করছে। তবে, আমাদের নিজেদের করণীয় কী, তাও ভাবতে হবে। সুনাগরিক হিসেবে রাষ্ট্রের প্রতি আমাদের কিছু কর্তব্য রয়েছে। উপকূলীয় এলাকায় অধিক বৃক্ষরোপণের মাধ্যমে উপকূলীয় সবুজ বেষ্টনী গড়ে তুলতে হবে। আমরা সিডর, আয়লাসহ বিভিন্ন ভয়াবহ ঘূর্ণিঝড়ে দেখেছি, সুন্দরবন কীভাবে আমাদের জন্য দুর্গ হিসেবে কাজ করেছে। তাই বৃক্ষরোপণের পাশাপাশি বৃক্ষ নিধন প্রতিরোধ করতে হবে। বনদস্যুদেরকে সকলে মিলে প্রতিহত করতে হবে। আসুন আমরা প্রত্যেকে শপথ নেই যে, প্রতিবছর অন্তত ৫টি করে গাছের চারা রোপণ ও বিতরণ করবো। মইনীয়া যুব ফোরাম দেশজুড়ে বৃক্ষরোপণ কর্মসূচি পালন করে আসছে। এছাড়াও আমরা প্লাস্টিক দূষণ রোধ ও পরিবেশবান্ধব কার্যক্রমকে উৎসাহিত করছি। আমরা মাইজভাণ্ডারী অনুসারীদের মাধ্যমে পরিবেশ সুরক্ষায় সমাজে একটি জাগরণ সৃষ্টি করতে চাই।”

৩০শে মে  চাঁদপুর জেলার মতলব উত্তরের ঠেটালিয়ায় “জলবায়ু পরিবর্তনের প্রভাব মোকাবেলায় বৃক্ষরোপণ কর্মসুচীতে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন।

বিশেষ অতিথি ছিলেন বাংলাদেশ সুপ্রিম পার্টির ভাইস চেয়ারম্যান মাওলানা রুহুল আমিন ভূঁইয়া, মইনীয়া যুব ফোরামের সাধারণ সম্পাদক শাহ মোহাম্মদ আসলাম হোসেন, সাংগঠনিক সম্পাদক শাহ মোহাম্মদ কামরুজ্জামান হারুন, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক হাবিবুর রহমান পায়েল, ঢাকা মহানগর দক্ষিণ সাধারণ সম্পাদক জাহিদ হোসেন শ্যামল, ঢাকা মহানগর উত্তর সাধারণ সম্পাদক সোহেল মাহমুদ ভূঁইয়া, চাঁদপুর জেলার সাধারণ সম্পাদক মাকসুদুর রহমান,শাহ মোঃ লিয়াকত হোসেন,শাহ মোঃ আলমগীর হোসেন,শাহ মোঃ আব্দুর রশিদ মিয়াজী।

সভাপতিত্ব করেন মতলব উত্তর উপজেলা শাখার সভাপতি নজরুল ইসলাম মামুন। সঞ্চালনায় সাধারণ সম্পাদক মুক্তার হোসেন মেনন।

পরে গাছের চারা রোপণ ও বিতরণ করেন ড. সাইয়্যিদ সাইফুদ্দীন আহমদ আল হাসানী মাইজভাণ্ডারী।