ইমরান-নওয়াজ উভয়ের দাবি জয়, এখন কী হবে

নিজস্ব প্রতিবেদক
  • Update Time : ১০:০৮:৩১ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ১০ ফেব্রুয়ারী ২০২৪
  • / ২৪ Time View

পাকিস্তানে অনুষ্ঠিত জাতীয় নির্বাচনের ভোটগ্রহণ গত বৃহস্পতিবার (৮ ফেব্রুয়ারি) স্থানীয় সময় বিকেল পাঁচটায় সম্পন্ন হয়। এরপর আজ শনিবার পর্যন্ত পুরো ফলাফল প্রকাশ করা হয়নি।

পাকিস্তানের নির্বাচন কমিশনের ওয়েবসাইটের তথ্যানুযায়ী এখন পর্যন্ত ২৫০ আসনের ফল প্রকাশ করা হয়েছে। আর বাকি রয়েছে ১৫ আসনের ফল। তবে ইতিমধ্যেই তিনবারের সাবেক প্রধানমন্ত্রী নওয়াজ শরিফ নিজের দলকে বিজয়ী ঘোষণা করেছেন। গতকাল শুক্রবার দিয়েছেন বিজয়ী ভাষণ। সেইসঙ্গে সরকার গঠন করার জন্য জোট বাঁধতে পারেন বলে জানিয়েছেন।

এদিকে নওয়াজ শরিফের প্রতিদ্বন্দ্বী দেশটির আরেক সাবেক প্রধানমন্ত্রী ও পাকিস্তান তেহরিক-ই-ইনসাফের (পিটিআই) প্রতিষ্ঠাতা ইমরান খানও গতকাল শুক্রবার রাতে বিজয়ী ভাষণ দিয়েছেন। এআই-এর মাধ্যমে তৈরি করা ভাষণে তিনি তার দলের বিপুল জয়ের দাবি করেছেন এবং তার সমর্থকদের ধন্যবাদ জানিয়েছেন।

এই রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত স্বতন্ত্র প্রার্থীরা সবচেয়ে বেশি ৯৯টি আসন পেয়েছেন। এসব প্রার্থীর বেশিরভাগই ইমরানসমর্থিত। এরপরেই নওয়াজ শরিফের দল পিএমএল-এন পেয়েছে ৭১ আসন। আরেক প্রভাবশালী নেতা বিলাওয়াল ভুট্টোর দল পিপিপি পেয়েছে ৫৩ আসন।

এছাড়া মুত্তাহিদা কওমি মুভমেন্ট পাকিস্তান (এমকিউএম) ১৭ আসনে জয় পেয়েছে। অন্যান্য দলগুলো পেয়েছে ১১ আসন। দেশটিতে একক দল হিসেবে সরকার গঠন করতে হলে ১৩৪ আসন পেতে হবে।

তাই দেশটিতে এখন সরকার গঠন করতে হলে জোট বাঁধতে হবে। যদিও ইতিমধ্যে পিটিআই-এর পক্ষ থেকে স্পষ্ট জানিয়েছে দেওয়া হয়েছে তারা পিপিপি বা পিএলএম-এনের সঙ্গে কোনো যোগাযোগ করেনি এবং তাদের সঙ্গে জোট বাঁধবে না। তাই এখন সময়ের অপেক্ষা কোন দলে কাকে জোটে নিয়ে আসতে পারে এবং সরকার গঠন করে।

Tag :

Please Share This Post in Your Social Media

ইমরান-নওয়াজ উভয়ের দাবি জয়, এখন কী হবে

Update Time : ১০:০৮:৩১ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ১০ ফেব্রুয়ারী ২০২৪

পাকিস্তানে অনুষ্ঠিত জাতীয় নির্বাচনের ভোটগ্রহণ গত বৃহস্পতিবার (৮ ফেব্রুয়ারি) স্থানীয় সময় বিকেল পাঁচটায় সম্পন্ন হয়। এরপর আজ শনিবার পর্যন্ত পুরো ফলাফল প্রকাশ করা হয়নি।

পাকিস্তানের নির্বাচন কমিশনের ওয়েবসাইটের তথ্যানুযায়ী এখন পর্যন্ত ২৫০ আসনের ফল প্রকাশ করা হয়েছে। আর বাকি রয়েছে ১৫ আসনের ফল। তবে ইতিমধ্যেই তিনবারের সাবেক প্রধানমন্ত্রী নওয়াজ শরিফ নিজের দলকে বিজয়ী ঘোষণা করেছেন। গতকাল শুক্রবার দিয়েছেন বিজয়ী ভাষণ। সেইসঙ্গে সরকার গঠন করার জন্য জোট বাঁধতে পারেন বলে জানিয়েছেন।

এদিকে নওয়াজ শরিফের প্রতিদ্বন্দ্বী দেশটির আরেক সাবেক প্রধানমন্ত্রী ও পাকিস্তান তেহরিক-ই-ইনসাফের (পিটিআই) প্রতিষ্ঠাতা ইমরান খানও গতকাল শুক্রবার রাতে বিজয়ী ভাষণ দিয়েছেন। এআই-এর মাধ্যমে তৈরি করা ভাষণে তিনি তার দলের বিপুল জয়ের দাবি করেছেন এবং তার সমর্থকদের ধন্যবাদ জানিয়েছেন।

এই রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত স্বতন্ত্র প্রার্থীরা সবচেয়ে বেশি ৯৯টি আসন পেয়েছেন। এসব প্রার্থীর বেশিরভাগই ইমরানসমর্থিত। এরপরেই নওয়াজ শরিফের দল পিএমএল-এন পেয়েছে ৭১ আসন। আরেক প্রভাবশালী নেতা বিলাওয়াল ভুট্টোর দল পিপিপি পেয়েছে ৫৩ আসন।

এছাড়া মুত্তাহিদা কওমি মুভমেন্ট পাকিস্তান (এমকিউএম) ১৭ আসনে জয় পেয়েছে। অন্যান্য দলগুলো পেয়েছে ১১ আসন। দেশটিতে একক দল হিসেবে সরকার গঠন করতে হলে ১৩৪ আসন পেতে হবে।

তাই দেশটিতে এখন সরকার গঠন করতে হলে জোট বাঁধতে হবে। যদিও ইতিমধ্যে পিটিআই-এর পক্ষ থেকে স্পষ্ট জানিয়েছে দেওয়া হয়েছে তারা পিপিপি বা পিএলএম-এনের সঙ্গে কোনো যোগাযোগ করেনি এবং তাদের সঙ্গে জোট বাঁধবে না। তাই এখন সময়ের অপেক্ষা কোন দলে কাকে জোটে নিয়ে আসতে পারে এবং সরকার গঠন করে।