আলোড়ন সৃষ্টিকারী ছবি তোলা জয়িতার লড়াইয়ের গল্প

নিজস্ব প্রতিবেদক
  • Update Time : ০৭:১৩:৪৭ অপরাহ্ন, বুধবার, ২ ফেব্রুয়ারী ২০২২
  • / ৫৮৩ Time View

 

দুদিন ধরে ফেসবুকে ছড়িয়েছে নৃত্যশিল্পী মোবাশ্বিরা কামাল ইরার ‘উড়ন্ত’ কিছু ছবি। ছবিগুলো দারুণ মুগ্ধতা ছড়িয়েছে নেটিজেনদের মাঝে। মুগ্ধ হয়ে তাকে অনেকে ‘বাংলার উড়ন্ত মানবী’, ‘আগুন ডানার পাখি’, ‘নারীমুক্তির অভিব্যক্তি’ হিসেবে বর্ণনা করেছেন।

নৃত্যশিল্পী ইরার ব্যালে নৃত্যকলার এসব মনোমুগ্ধকর ছবি তুলেছেন চিত্রগ্রাহক জয়িতা আফরিন। ইরা মঙ্গলবার (২৫ জানুয়ারি) রাতে ফেসবুকে নিজের আইডিতে ‘সামথিং নিউ’ শিরোনামের অ্যালবামে প্রকাশের সময়ই ছবিগুলো তোলার জন্য জয়িতা আফরিনকে ধন্যবাদ জানান।

অসাধারণ ছবিগুলো তোলার জন্য জয়িতা আফরিনের প্রশংসায়ও পঞ্চমুখ হয়েছেন ফেসবুক ব্যবহারকারীরা।

তবে জয়িতা আফরিনের জীবনের গল্পটা এমন নান্দনিক আর মসৃণ নয়। বরং তার জীবনের যুদ্ধ রোমাঞ্চকর আর দুঃসাধ্য মোড়কে ঘেরা। গত বছর থেকে ক্যানসারের সঙ্গে লড়াই করেই কাজ চালিয়ে গেছেন এই চিত্রশিল্পী। কেমোথেরাপি আর কাজ, দুটো চলছে একসঙ্গে। এখনো তার ইমিউনোথেরাপি চলছে।

বৃহস্পতিবার দুুপুরে ফেসবুক আইডিতে পোস্ট দিয়ে এ কথা জানিয়েছেন আফরিন নিজেই।

ফেসবুক পোস্টে তিনি লিখেছেন, ‘সবাই যখন শুধু সাফল্য দেখছেন ও অভিনন্দন জানাচ্ছেন আমাকে, কিন্তু এর পেছনে আমার যুদ্ধের গল্প হয়তো অনেকেই জানেন না। ভাইরাল হওয়া ছবি নিয়ে অনেক গল্প, প্রশংসা, মিম সবকিছুতে ফেসবুকে অনেক পোস্ট। আমি এই সাফল্য উৎসর্গ করলাম সব ক্যানসার আক্রান্তদের জন্য। কারণ আমি নিজে গত বছর থেকে এই ক্যানসারের সঙ্গেই যুদ্ধ করছি। কেমোথেরাপি নিয়ে কাজ চালিয়ে গেছি। এমনকি এখনো আমার ইমিউনোথেরাপি চলছে।’

তিনি আরও লিখেছেন, ‘ক্যানসার মানেই জীবন শেষ হয়ে যাওয়া নয় বরং নতুন একটা জীবনের শুরুও।’

Tag :

Please Share This Post in Your Social Media

আলোড়ন সৃষ্টিকারী ছবি তোলা জয়িতার লড়াইয়ের গল্প

Update Time : ০৭:১৩:৪৭ অপরাহ্ন, বুধবার, ২ ফেব্রুয়ারী ২০২২

 

দুদিন ধরে ফেসবুকে ছড়িয়েছে নৃত্যশিল্পী মোবাশ্বিরা কামাল ইরার ‘উড়ন্ত’ কিছু ছবি। ছবিগুলো দারুণ মুগ্ধতা ছড়িয়েছে নেটিজেনদের মাঝে। মুগ্ধ হয়ে তাকে অনেকে ‘বাংলার উড়ন্ত মানবী’, ‘আগুন ডানার পাখি’, ‘নারীমুক্তির অভিব্যক্তি’ হিসেবে বর্ণনা করেছেন।

নৃত্যশিল্পী ইরার ব্যালে নৃত্যকলার এসব মনোমুগ্ধকর ছবি তুলেছেন চিত্রগ্রাহক জয়িতা আফরিন। ইরা মঙ্গলবার (২৫ জানুয়ারি) রাতে ফেসবুকে নিজের আইডিতে ‘সামথিং নিউ’ শিরোনামের অ্যালবামে প্রকাশের সময়ই ছবিগুলো তোলার জন্য জয়িতা আফরিনকে ধন্যবাদ জানান।

অসাধারণ ছবিগুলো তোলার জন্য জয়িতা আফরিনের প্রশংসায়ও পঞ্চমুখ হয়েছেন ফেসবুক ব্যবহারকারীরা।

তবে জয়িতা আফরিনের জীবনের গল্পটা এমন নান্দনিক আর মসৃণ নয়। বরং তার জীবনের যুদ্ধ রোমাঞ্চকর আর দুঃসাধ্য মোড়কে ঘেরা। গত বছর থেকে ক্যানসারের সঙ্গে লড়াই করেই কাজ চালিয়ে গেছেন এই চিত্রশিল্পী। কেমোথেরাপি আর কাজ, দুটো চলছে একসঙ্গে। এখনো তার ইমিউনোথেরাপি চলছে।

বৃহস্পতিবার দুুপুরে ফেসবুক আইডিতে পোস্ট দিয়ে এ কথা জানিয়েছেন আফরিন নিজেই।

ফেসবুক পোস্টে তিনি লিখেছেন, ‘সবাই যখন শুধু সাফল্য দেখছেন ও অভিনন্দন জানাচ্ছেন আমাকে, কিন্তু এর পেছনে আমার যুদ্ধের গল্প হয়তো অনেকেই জানেন না। ভাইরাল হওয়া ছবি নিয়ে অনেক গল্প, প্রশংসা, মিম সবকিছুতে ফেসবুকে অনেক পোস্ট। আমি এই সাফল্য উৎসর্গ করলাম সব ক্যানসার আক্রান্তদের জন্য। কারণ আমি নিজে গত বছর থেকে এই ক্যানসারের সঙ্গেই যুদ্ধ করছি। কেমোথেরাপি নিয়ে কাজ চালিয়ে গেছি। এমনকি এখনো আমার ইমিউনোথেরাপি চলছে।’

তিনি আরও লিখেছেন, ‘ক্যানসার মানেই জীবন শেষ হয়ে যাওয়া নয় বরং নতুন একটা জীবনের শুরুও।’