পাপ্পু কুমার:
আজ সরস্বতী পূজা ৷ ভোরবেলা থেকেই বাড়িতে বাড়িতে শুরু হয়ে গিয়েছে পুজোর আয়োজন ৷ সকাল থেকেই ঘরে ঘরে উলুর ধ্বনি, শাঁকে ফুঁ ও আরো কাজ সমহূ ৷ আজ আবার খুদেদের হাতে খড়িরও দিন ৷ চলছে পুষ্পাঞ্জলি, ফলপ্রসাদ ও ভোগ বিতারণ। কুল খেতে অনেকদেরই ভালো লাগে না ৷ কিন্তু তাই বলে এই একটা দিন না খেলেই নয় ৷ দুর্গোপুজোর পাশাপাশি সরস্বতী পুজোও আবার বাড়িতে আনন্দ নিয়ে আসে ৷
.
আজ আসলে যতোই সামনে পরীক্ষা থাকুক না কেন, এই বিশেষ দিনটায় যে পড়তে বসতে নেই ! ছাত্র জীবনে এই একটাই দিন যখন স্কুল বা কলেজে যাওয়ার জন্য পড়ুয়াদের উন্মাদনা চোখে পড়ার মতো থাকে। পরের দিন সকালের কথা ভেবে যেন রাতে ঘুম আসতে চায় না।
.
শাস্ত্রমতে, প্রতি বছর মাঘ মাসের শুক্লপক্ষের পঞ্চমী তিথিতে শ্বেতশুভ্র কল্যাণময়ী বিদ্যাদেবীর বন্দনা করা হয়। ঐশ্বর্যদায়িনী, বুদ্ধিদায়িনী, জ্ঞানদায়িনী, সিদ্ধিদায়িনী, মোক্ষদায়িনী এবং শক্তির আধার হিসেবে সনাতন ধর্মাবলম্বীরা সরস্বতী দেবীর আরাধনা করেন। সরস্বতী দেবী শ্বেতশুভ্র বসনা। দেবীর এক হাতে বেদ, অন্য হাতে বীণা।
.
এজন্য তাকে বীণাপানিও বলা হয়। সনাতন ধর্মীয় বিশ্বাস অনুযায়ী, জ্ঞান ও বিদ্যার অধিষ্ঠাত্রী দেবী তার আশীর্বাদের মাধ্যমে মানুষের চেতনাকে উদ্দীপ্ত করতে প্রতি বছর আবির্ভূত হন ভক্তদের মাঝে। সব শিক্ষার্থীরাই এ পূজায় মনোযোগী হয়। বিভিন্ন স্কুল, কলেজ, বিশ্ববিদ্যালয় এবং ঘরে ঘরে সরস্বতী পূজা অনুষ্ঠিত হবে।
.
দেশের বিভিন্ন এলাকা ও শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে পূজার আয়োজন হলেও সরস্বতী পূজার প্রধান কেন্দ্র হয়ে উঠেছে বিভিন্ন স্থান। সরস্বতী পূজা উপলক্ষে চমৎকার এক উৎসবে পরিণত হয়।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে

3 × two =